Bnanews24.com
Home » চট্টগ্রামের শীর্ষ সন্ত্রাসী নুরু নোয়াখালী থেকে গ্রেফতার
এক নজরে চট্টগ্রাম সব খবর

চট্টগ্রামের শীর্ষ সন্ত্রাসী নুরু নোয়াখালী থেকে গ্রেফতার

শীর্ষ সন্ত্রাসী নুরুর তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

বিএনএ, চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামে পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী মো. নুর আলম প্রকাশ নুরু ও তার সহযোগী কাউছারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (৮ জানুয়ারি) রাতে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে দুইটি অস্ত্র, দুইটি কিরিচ, একটি রাম দা ও ৪শ’ ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করা হয়। পাহাড় দখল, পাহাড় কাটা, অপহরণ, ধর্ষণ ও মাদক ব্যবসায় জড়িত ছিল নুরু। তার বিরুদ্ধে অন্তত ৩০টি মামলা রয়েছে।

শনিবার (৯ জানুয়ারি) নগরের আগ্রাবাদ সিডিএ এলাকায় সিএমপির উপ-কমিশনার (পশ্চিম) ফারুক উল হক ব্রিফিংয়ে বলেন,  নুরু আকবরশাহ থানার নাছিয়া ঘোনা এলাকায় তৈরি করেছিল সশস্ত্র বাহিনী। তার বাহিনীতে সক্রিয় সদস্য রয়েছে ৫০ থেকে ৬০ জন। তারা নুরুর নির্দেশে তার অপরাধ সাম্রাজ্য পরিচালনা করতো।আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাত থেকে বাঁচতে আকবরশাহ এলাকায় তার সশস্ত্র বাহিনী নিয়োজিত ছিল।

তিনি জানান,  সে এক সময় ফয়’জ লেক রিসোর্টে কর্মচারী ছিল। সেখান থেকে একসময় পাহাড় দখল শুরু করে নুরু। পরে পাহাড় কেটে প্লট তৈরি করে সেগুলো বিক্রি শুরু করে। ফয়’জ লেক, আকবরশাহ কেন্দ্রিক চাঁদাবাজি, অপহরণ, ধর্ষণের মতো অপরাধে জড়িয়ে পড়ে। অস্ত্র মামলায় জামিন নিয়ে পলাতক ছিল নুরু। পরে তার অনুপস্থিতিতে সাজা ঘোষণা করা হয়। কিন্তু ২০২০ সালের ২৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত আকবরশাহ থানা পুলিশ নুরুর সাজার বিষয়ে জানতো না।

‘বিষয়টি জানাজানির পর তিনদিন আগে নুরুর সাজা পরোয়ানা থানায় পৌঁছে। সাজা পরোয়ানা কেন এক বছরেও থানায় পৌঁছেনি তা নিয়ে তদন্ত চলবে। এর সঙ্গে কারা জড়িত তাদের খুঁজে বের করা হবে। সম্প্রতি নুরুকে গ্রেফতারে অভিযানে গেলে পুলিশের ওপর হামলা চালায় তার বাহিনী। পরে অভিযানে নুরুর ১২ সহযোগীকে গ্রেফতার করতে পারলেও অধরা ছিল সে।’- বলেন তিনি।

চট্টগ্রাম গোয়েন্দা পশ্চিম বিভাগের উপ-কমিশনার মনজুর মোরশেদ, অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (পশ্চিম) এএএম হুমায়ুন কবির, অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গোয়েন্দা-পশ্চিম) আবুল কালাম শাহিন, আকবরশাহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জহির হোসেন, গোয়েন্দা পশ্চিম বিভাগের পরিদর্শক মো. কামরুজ্জামান ব্রিফিংকালে উপস্থিত ছিলেন।

বিএনএনিউজ/আমিন