22 C
আবহাওয়া
৮:৪৮ পূর্বাহ্ণ - মার্চ ৪, ২০২৪
Bnanews24.com
Home » নাফ নদী থেকে শুরু, নাফ নদীতে শেষ ১৯৬ জন-পর্ব-১৬

নাফ নদী থেকে শুরু, নাফ নদীতে শেষ ১৯৬ জন-পর্ব-১৬

বাংলাদেশে ইয়াবা

।।ইয়াসীন হীরা।।
অনুসন্ধানে জানা যায়, ২০১৪ সালের ২০ মার্চ টেকনাফে আলোচিত মাদক ব্যবসায়ি নুর মোহাম্মদ প্রথম ক্রসফায়ারের শিকার হন। এরপর ২০১৪ সালের ২৭ এপ্রিল কায়ূকখালী পাড়ার মৃত জয়নাল আবেদীন সওদাগরের পুত্র জাহেদ হোছন জাকু (৪৫) ও নাইট্যং পাড়ার মৃত শামসুল আলমের ছেলে ফরিদুল আলম (৪৮) নিহত হন।এর পর দীর্ঘ ৪ বছর কথিত বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটেনি। ২০১৮ সালে ২৫মে থেকে ফের ক্রসফায়ার শুরু হয়।

২০১৮ সালে ২৬ জন

২০১৮ সালের ২৫ মে ভোররাতে বন্দুক যুদ্ধে নিহত হন মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের তালিকাভূক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ি আক্তার কামাল (৪০)। সে সাবরাং ইউপির ২নং ওয়ার্ড মেম্বার ও আলীর ডেইলের মৃত নজির আহমদ মেম্বারের পুত্র। এর পরদিন ২৬ মে টেকনাফ কায়ুকখালী পাড়ার মৃত আব্দুস সাত্তারের পুত্র কমিশনার একরামুল হক (৪৬)। কমিশনার একরামুল হক ক্রসফায়ারে নিহত হওয়ার পর ক্রসফায়ার নিয়ে সারাদেশে তোলপাড় শুরু হয়। এরপর দীর্ঘদিন ক্রসফায়ার বন্ধ থাকে।

একরা‌মের স্ত্রীর সংবাদ স‌ম্মেলন

পরবর্তীতে ৩০ সেপ্টেম্বর হ্নীলা পশ্চিম সিকদার পাড়ার আজিজুল হক মিস্ত্রীর পুত্র মোঃ ইমরান প্রকাশ পুতিয়া মিস্ত্রী (৩৫), ২৪ অক্টোবর হ্নীলার পূর্ব লেদার মৃত লাল মিয়ার পুত্র মফিজ আলম (৩২),
২৬অক্টোবর হ্নীলা উলুচামরীর কালা মিয়া প্রকাশ কালুর পুত্র মোঃ হাসান ওরফে হামিদুল ইসলাম প্রকাশ লালাইয়া (৩৫)।
২৮শে অক্টোবর টেকনাফ পৌর এলাকার উত্তর জালিয়া পাড়ার মোহাম্মদ হাশিমের পুত্র হাসান আলী (৪৩), নাজির পাড়ার নুরুল আলমের পুত্র মোঃ কামাল উদ্দিন (২৮)।
১ নভেম্বর সাবরাং কচুবনিয়ার জালাল আহমদ বৈদ্যের পুত্র মোঃ হেলাল (১৮), কোয়াংছড়ি পাড়ার মিয়া হোসেনের পুত্র মোঃ মিজান (১৫)।
২ নভেম্বর হ্নীলা পূর্ব সিকদার পাড়ার মৃত তোফাইল আহমদের পুত্র সাদ্দাম হোসেন(৩৫), সাবরাং পূর্ব সিকদার পাড়ার সোলতান আহমদের পুত্র সাদ্দাম হোসেন (৩০)।

একরাম সস্ত্রীক
‌ছে‌লে মে‌য়ে স্ত্রীর সাথে বন্দুকযু‌দ্ধে নিহত একরাম

৭ নভেম্বর হোয়াইক্যং নয়াবাজারের পশ্চিম সাতঘরিয়া পাড়ার মৃত মোবারক আলীর পুত্র আলী হোসেন প্রকাশ সোনা মিয়া কোম্পানী(৩৮), ১০ নভেম্বর হ্নীলা পশ্চিম সিকদার পাড়ার ছৈয়দ আহমদ ছৈয়তুর পুত্র জিয়াউল বশির শাহীন (৩২)।
১১ নভেম্বর অজ্ঞাত ২ রোহিঙ্গা, ১৮ নভেম্বর দক্ষিণ লেঙ্গুর বিলের মৃত আব্দুল কাদেরের পুত্র ফরিদ আলম (৩০) প্রকাশ আলম, ২০ নভেম্বর র্যা ব-৭ এর হাতে ময়মনসিংহ সদরের কোতোয়ালী পাড়ার আবু চৌধুরী মোড়ের আব্দুল হাকিমের পুত্র আশিক জাহাঙ্গীর (৪০), নারায়নগঞ্জ তেল্লাপাড়া বড় জামে মসজিদ এলাকার আব্দুল বারেকের পুত্র আরিফ হোসেন (৩১)।
২১ নভেম্বর সাবরাং কচুনিয়ার আব্দুর রহিমের পুত্র নজির আহমদ প্রকাশ নজির ডাকাত(৩৮), হ্নীলা জাদিমোরা নয়াপাড়ার আমির হামজার পুত্র আব্দুল আমিন (৩৫), ২৫ নভেম্বর নাজির পাড়ার হাজী নুরুল ইসলামের পুত্র জিয়াউর রহমান (৩৪)।
২৯ নভেম্বর সাবরাং আলীর ডেইলের মৃত ছিদ্দিক আহমদের পুত্র মোহাম্মদ হানিফ(২৮), ১ ডিসেম্বর বাহারছড়ার শাপলাপুরের মোহাম্মদ হোসেনের পুত্র হাবিব উল্লাহ (৩০) সহ মোট ২৬জন ।

২০১৯সালে ১২২জন ।

২০১৯ সালে ৪ জানুয়ারি চট্টগ্রামের পশ্চিম আমিরাবাদের কামাল উদ্দিনের পুত্র সাজ্জাদ হোসেন ইমরান (২৫),
৫ জানুয়ারি ঊনছিপ্রাং পুটিবনিয়া ক্যাম্পের মৃত আবুল কাশেমের পুত্র খাইরুল আমিন (৩৫), হাবিবুর রহমান প্রকাশ হাবির পুত্র আব্দুল্লাহ (৪০)।
৮ জানুয়ারি বাগেরহাট বড় বাড়ীয়ার মোঃ ইব্রাহীম শেখের পুত্র মোঃ সাব্বির হোসেন(২৫), ঢাকা সাভার নগর কুন্ডার আব্দুল মতিনের পুত্র হাফিজুর রহমান (৩৫)।
১০ জানুয়ারি সাবরাং কাটাবনিয়ার আব্দুর রহমানের পুত্র আবুল কালাম(৩৫), কচুবনিয়ার মৃত এনাম শরীফের পুত্র আব্দুর রশিদ প্রকাশ ডাইলা (৪৭)।
১২ জানুয়ারি মন্ডুস্থ নাগাকুরার সিকদার পাড়ার মোহাম্মদ আলমের পুত্র আয়াজ উদ্দিন(২৭), বদিউর রহমানের পুত্র ছৈয়দুল আমিন (২৫)।
২০জানুয়ারি টেকনাফ পৌর এলাকার উত্তর জালিয়া পাড়ার মৃত জাকির হোসেনের পুত্র মোস্তাক আহমদ মুছু।
২১ জানুয়ারী হ্নীলা পূর্ব সিকদার পাড়ায় অবস্থানকারী মোহাম্মদ হোসেনের পুত্র শামসুল আলম প্রকাশ বার্মাইয়া শামসু।
২৪ জানুয়ারি সাবরাং এলাকার বেলাল (৩৫) ও শাকের(৩৬) নামে ২জন।
২৮ জানুয়ারি হোয়াইক্যং মিনা বাজারের ছফর আলীর পুত্র মোঃ রফিক(৩০) ও ঝিমংখালীর ফরিদ আলমের পুত্র দেলোয়ার হোসেন প্রকাশ রুবেল (২৫)।

২০ জানুয়ারি নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পের ২৬নং মোচনী ক্যাম্পের দ্বীন মোহাম্মদের পুত্র মোঃ জাফর আলম (২৬),
২২ ফেব্রুয়ারি নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পো মৃত হোসেন প্রকাশ লাল বুইজ্জার পুত্র ডাকাত নুরুল আলম(৩০), লক্ষীপুর জেলা সদর থানার শাকচর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের পুত্র মোঃ বেলাল (২৫)।

১মার্চ টেকনাফ চৌধুরী পাড়ার আব্দুল জলিলের পুত্র নজির আহমদ ডাকাত (৩০), হোয়াইক্যং নয়াপাড়ার হাজী মোহাম্মদ জাকারিয়ার পুত্র গিয়াস উদ্দিন(২৯), বিজিবির হাতে টেকনাফ ডেইল পাড়ার কালা মিয়ার পুত্র আব্দুস শুক্কুর(৪৮), আব্দুস শুক্কুরের পুত্র মোঃ ইলিয়াছ (২৫)।
১১ মার্চ পূর্ব সাতঘরিয়া পাড়ার শাহ আলমের পুত্র আব্দুর রহমান (২৩), ১৪মার্চ অজ্ঞাত ১জন।
১৯ মার্চ টেকনাফ চৌধুরী পাড়ার মোঃ আব্দুল জলিলের পুত্র ইয়াছিন আরাফাত(২৫), ২২ মার্চ নাজির পাড়ার এজাহার মিয়ার পুত্র নুর মোহাম্মদ(৪০), দক্ষিণ জালিয়া পাড়ার আব্দুল শুক্কুরের পুত্র নুরুল আমিন।
২৬ মার্চ নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পের মোহাম্মদ জলিলের পুত্র মোহাম্মদ আবু ছৈয়দ প্রকাশ সাদেক (৩৫), ২৭ মার্চ ভোররাত সাড়ে ৪টায় অজ্ঞাত ২ রোহিঙ্গা।
৩১ মার্চ আলী আকবর পাড়ার মিয়া হোসেনের পুত্র মাহমুদুর রহমান (২৮), হ্নীলা পশ্চিম সিকদার পাড়া মইন্যাজুমের নুরুল ইসলামের পুত্র মোহাম্মদ আবছার (২৫)সহ ১৪জন।

৪ এপ্রিল নয়াপাড়া ক্যাম্পের পীর মোহাম্মদের পুত্র হাশেম(৩৫)।
৬ এপ্রিল নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পের আমির হোসেনের পুত্র নুরুল আলম (২৩), এইচ ব্লকের ইউনুছের পুত্র মোঃ জুবাইর (২০), ইমাম হোসেনের পুত্র হামিদ উল্লাহ (২০), ১১ এপ্রিল হোয়াইক্যং পশ্চিম সাতঘরিয়া পাড়ার আনু মিয়ার পুত্র আবুল কাশেম (৩২)।
২০ এপ্রিল হোয়াইক্যং পশ্চিম কাঞ্জর পাড়ার আব্দুর রহমানের পুত্র শাহাবুদ্দিন (৩২), ২১ এপ্রিল নাইক্ষ্যাংছড়ির কম্বনিয়া পাড়ার সিরাজুল ইসলামের পুত্র মহিউদ্দিন (২৬)।
২২এপ্রিল গোদার বিলের মৃত মকবুল আহমদ ওরফে পুতুর ছেলে দিল মোহাম্মদ প্রকাশ দিলু (৩৬)।
২৪এপ্রিল লেঙ্গুরবিলের মৃত বদিউজ্জামানের পুত্র তালিকাভূক্ত ডাকাত মোস্তাক আহমেদ (৩৮)সহ ৯ জন।

৫ মে পুরান পল্লান পাড়ার আব্দুর রশিদের পুত্র মোঃ আব্দুল্লাহ (২৪), ৬মে রাত নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পের বাঁচা মিয়ার পুত্র মোঃ আলম (৩৫), জাদিমোরা ক্যাম্পের আলী হোসেনের পুত্র মোহাম্মদ রফিক (২০)।
১১ মে টেকনাফ সদরের উত্তর নাজির পাড়ার সোলতান আহমদের পুত্র দুদু মিয়া (৩৮)।
১৪মে অজ্ঞাত ২জন, ১৫মে আচারবনিয়ার ফজল আহমদের পুত্র মোঃ সিরাজ ওরফে (২৭), ১৮মে শাহপরীর দ্বীপ মিস্ত্রী পাড়ার নুরুল আমিন বল্লার পুত্র মোঃ ইব্রাহীম (৩২)।
২৩ মে নাটমোরা পাড়ার কাশেম আলীর পুত্র মোহাম্মদ হানিফ (৩৮), ৩১ মে শীলবনিয়া পাড়ার ডাঃ হানিফের পুত্র সাইফুল করিম (৪৫)সহ ১০জন।

১ জুন মিয়ানমার রাইম্যাবিলের সুলতান আহমদের পুত্র আব্দুল গফুর (৪০), টেকনাফ কেরুনতলীর মৃত শরীফ আহমদের পুত্র মোঃ সাদেক (২৩)।
৩জুন হোয়াইক্যং কাটাখালীর সাবেক মেম্বার গোলাম আকবরের পুত্র মুফিজুর রহমান প্রকাশ মফিজ (৪১)।
১০ জুন অজ্ঞাত ১জন রোহিঙ্গা।
১৫ জুন নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানার লক্ষণঘোনার ফয়েজ আহমদের পুত্র মোঃ রাসেল মাহমুদ (৩৬)।
১৬জুন কক্সবাজার চৌধুরী পাড়ার গবী সোলতানের পুত্র দিল মোহাম্মদ (৪২), মোঃ ইউনুছের পুত্র রাশেদুল ইসলাম(২২), চট্টগ্রাম আমিরাবাদ মাস্টার হাটের আবুল কাশেমের পুত্র শহিদুল ইসলাম (৪২)।
২৩জুন টেকনাফ নাইট্যং পাড়ার মৃত রশিদ আহমদের ছেলে মোঃ রুবেল (২৩), কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের হাবিবুল্লাহর ছেলে ওমর ফারুক (১৯)।
২৮ জুন হ্নীলা পশ্চিম সিকদার পাড়ার (মন্ডল পাড়া) মৃত মাহমুদুর রহমান প্রকাশ বাইট্টা মাদুর পুত্র হাত কাটা আব্দুর রহমান (২৮) এবং আব্দুস সালাম (২৬)।

২ জুলাই টেকনাফ সদর ইউপির ৫নং ওয়ার্ড মেম্বার মৃত আবুল হাশিমের পুত্র মোঃ হামিদ প্রকাশ হামিদ মেম্বার প্রকাশ হামিদ ডাকাত (৪৫)।
৩ জুলাই সদর ইউপির ইসলামাবাদের নজির আহমদের পুত্র সলিমুল্লাহ(৩৫), ১১ জুলাই নতুন পল্লান পাড়ার মৃত মকবুল আহমদের পুত্র আব্দুল মালেক(৩৮), ১৪ জুলাই হোয়াইক্যং নয়াপাড়ার মৃত নজির আহমদের পুত্র মুফিদুল আলম প্রকাশ মংগ্যাইয়া (৪২)।
১৭ জুলাই পশ্চিম জাদিমোরার ছমির উদ্দিনের স্ত্রী হামিদা বেগম(৩২), বিজিবির হাতে যশোরের শুক্কর আলীর পুত্র জাবেদ মিয়া(৩৪), চাঁদপুরের রেজোয়ান সওদাগরের পুত্র আসমাউল সওদাগর (৩৫)।

২১ জুলাই হোয়াইক্যং পশ্চিম সাতঘরিয়া পাড়ার মৃত আনু মিয়ার পুত্র মোঃ হোসেন(৩৯), ২৩ জুলাই বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মোঃ ইসলামের ছেলে মোঃ কামাল(২২), হোয়াইক্যং মহেশখালীয়া পাড়ার আবু শামার ছেলে মোঃ হাবিবুর রহমান(২৩)।
২৯ জুলাই সাবরাং লেজির পাড়ার বশির আহমদের পুত্র আব্দুর রহমান(৪২), রামুর খুনিয়া পালংয়ের পূর্ব গোয়ালিয়া পাড়ার কবির আহমদের পুত্র ওমর ফারুক(৩১), ৩১ জুলাই হ্নীলা জাদিমোরার ছৈয়দ আলীর পুত্র মোঃ ইব্রাহীম (২০)সহ ১৩ জন।

৩ আগস্ট কুতুবদিয়ার নুরুচ্ছফা ডাকাতের পুত্র আয়ুব (৩৫), শাহজাহান বাদশাহর পুত্র জুনাইদ(৩২), টেকনাফ নাইট্যং পাড়ার আব্দুল গফুরের পুত্র ইয়াবা কারবারী মেহেদী হাসান(৩২)।
৫ আগষ্ট হোয়াইক্যং নয়াবাজারের জলিল আহমদের পুত্র দেলোয়ার হোসেন(৩০), উখিয়া কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্প-২ এর রোহিঙ্গা নাগরিক মৃত হায়দার শরীফের পুত্র নুরুল ইসলাম (২৭)।

৮ আগস্ট পুরান পল্লান পাড়ার মৃত জলিল আহমদ প্রকাশ জানে আলমের পুত্র কবির আহমদ(৪২), কবির আহমদের স্ত্রী রুবি আক্তার (২৫)।
১৬ আগষ্ট হ্নীলা পশ্চিম সিকদার পাড়ার আনোয়ার হোসেনের পুত্র মোঃ বাবুল(২৬), ২২ আগস্ট উখিয়া কুতুপালং ৭নং ক্যাম্পের মৃত সৈয়দ হোসেনের পুত্র মোঃ সাকের(২২), নয়াপাড়া মোচনী ক্যাম্পের মৃত মোহাম্মদ আলীর পুত্র নুর আলম (৩০)।
২৪ আগস্ট জাদিমোরা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সাবির আহমদের পুত্র ডাকাত মোঃ শাহ(৩৮), বালুখালী ক্যাম্পে অবস্থানকারী আকিয়াব জেলার রাসিদংয়ের আব্দুল আজিজের পুত্র শুক্কুর, ২৬ আগস্ট নয়াপাড়া শরণার্থী ক্যাম্পের মোঃ আমিরুল ইসলামের পুত্র মোঃ হাসান (২০)।
১লা সেপ্টেম্বর জাদিমোরার মৃত রোহিঙ্গা কালা মিয়ার পুত্র নুর মোহাম্মদ (৩৪)।
১৩ সেপ্টেম্বর এ/পি নয়াপাড়া রেজিষ্টার্ড ক্যাম্পের জমির আহমদের পুত্র মোঃ আব্দুল করিম (২৪), একই ব্লকের ছৈয়দ হোসেনের পুত্র নেছার আহমদ ওরফে নেছার ডাকাত (২৭), ১৫ সেপ্টেম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্প-২৬ এর বাসিন্দা মৃত আলী আহমদের পুত্র ডাকাত হাবিব উল্লাহ (৪০)।
১৯ সেপ্টেম্বর বালুখালী ১৭নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ফজল আহমদের ছেলে মোঃ জামিল(২০), নবী হোসেনের ছেলে মোঃ আছমত উল্লাহ (২১), টেকনাফ বাহারছড়া নতুনপাড়ার মৃত মোঃ আলীর ছেলে মোঃ রফিক (২৪)।
২২ সেপ্টেম্বর লেদা ক্যাম্পের মৃত কাদের হোসেনের পুত্র দিল মোহাম্মদ (৩২), দিল মোহাম্মদের স্ত্রী জাহেদা (২৭)।
২৭ সেপ্টেম্বর মিয়ানমারের আকিয়াব জেলার মন্ডু থানার বুড়া সিকদার পাড়ার মোস্তাকের পুত্র দিল মোহাম্মদ (২১), দিল মোহাম্মদের পুত্র দোস্ত মোহাম্মদ(১৯), ৩০ সেপ্টেম্বর মন্ডুর নাগাকুরাস্থ বুড়া সিকদার পাড়ার মৃত হারুনুর রশিদের পুত্র মোঃ জামাল (২৭), জাফর আলমের পুত্র মোঃ ইউনুছ (২১)।
১ অক্টোবর মোঃ আমিন ও হেলাল উদ্দিন সুমন।
১২ অক্টোবর নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মৃত কালা মিয়ার পুত্র আব্দুর রহমান ওরফে জাকারিয়া ডাকাত (৪৬)।
১৭ অক্টোবর হোয়াইক্যং কাঞ্জরপাড়ার শামশুল আলমের পুত্র জিয়াবুল হক প্রকাশ বাবুইল্যা ডাকাত(৩০), বাহারছড়া শীলখালীর কেফায়েত উল্লাহর পুত্র আজিম উল্লাহ (৪৬)।
১৮ অক্টোবর নিহতরা কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্পের সোলতান আহমদের পুত্র মোঃ আবুল হাসিম(২৫) এবং ব্লক সি/১ এর আবু ছিদ্দিকের পুত্র নুর কামাল (১৯)।
২০ অক্টোবর মধ্যম কাঞ্জর পাড়ার মৃত আব্দুল জলিলের পুত্র মোঃ রহিম উদ্দিন (৩৭) ওরফে রফিক, সদর ইউপির ডেইল পাড়ার ছালেহ আহমদের পুত্র মোঃ আজিজ (২৪),
২৩ অক্টোবর হোয়াইক্যং চাকমারকুলের কাদির হোসেনের পুত্র মোঃ সেলিম (৩৪) প্রকাশ ছলিম।
১৪ নভেম্বর নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এইচ ব্লকের মৃত বাকের আহমদের পুত্র মাহমুদুল হাসান(৪১), ১৫ নভেম্বর জাদিমোরা বৃটিশ পাড়ার পশ্চিমের শরণার্থী ক্যাম্পে অবস্থানকারী মোতালেবের পুত্র নুর কবির (২৮)।
২৮ নভেম্বর হ্নীলা উলুচামরীর মৃত হায়দর আলীর পুত্র মোঃ উল্লাহ ওরফে সোনা মিয়া (৪৫) সহ ৩ জন।

৭ ডিসেম্বর মোঃ ছিদ্দিক, ১০ডিসেম্বর হ্নীলা জাদিমোরার আব্দুস সালামের পুত্র ঈমাম হোসেন (২৫),
১৪ ডিসেম্বর হ্নীলা রঙ্গীখালীর গাজী পাড়ায় বসবাসরত নয়াবাজারের মৃত দিল মোহাম্মদের পুত্র বার্মাইয়া নুর হাফিজ (৩২), সাব্বির আহমদের পুত্র মোঃ সোহেল (২৭),
১৯ ডিসেম্বর লেদা ২৪নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আব্দুস সালামের পুত্র আব্দুল করিম (৩৮)।
২৪ ডিসেম্বর হ্নীলা জাদিমোরা জুম্মা পাড়ার মোঃ ছিদ্দিকের পুত্র মোঃ রুবেল(২২), ৩১ ডিসেম্বর পশ্চিম লেদা নুর আলী পাড়ার ছৈয়দুল ইসলামের পুত্র ডাকাত আনোয়ার সেলিম (৩২)।

২০২০ সালে ৪৬ জন

২০২০ সালের ৫ জানুয়ারি হোয়াইক্যং পশ্চিম সাতঘরিয়া পাড়ার মৃত নুর সালামের স্ত্রী ছমুদা বেগম (৪০)।
১৫ জানুয়ারি কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্পের হোছাইন শরীফের পুত্র আবুল হাশিম(৩০), শামসুল আলমের পুত্র মোঃ আইয়ুব (২৪)।
১৯ জানুয়ারি কুতুপালং ২নং ক্যাম্পের মোঃ জামাল হোসেনের পুত্র মোঃ আয়াস (২৫), ২৪ জানুয়ারী উপজেলার থাইংখালী ক্যাম্পে অবস্থানকারী ১ জন অজ্ঞাত রোহিঙ্গা।
২৬ জানুয়ারি হোয়াইক্যং পূর্ব সাতঘরিয়া পাড়ার জালাল আহমদের পুত্র মোঃ নাসির ওরফে মুন্না (৩০)।

৩১ জানুয়ারি বালুখালী ৮নং ক্যাম্পের মোঃ জাকেরের পুত্র মোঃ আব্দুল নাসির (২৮)।
৪ ফেব্রুয়ারি শালবাগান ক্যাম্পের মৃত মোঃ শফির পুত্র মোঃ ইলিয়াছ (৪০)।
১০ ফেব্রুয়ারি লেদার মকতুল হোসেনের পুত্র নুরুল আমিন, ২৩ ফেব্রুয়ারি নোয়াখালী জুম্মা পাড়া মৃত হাকিম আলীর পুত্র আব্দুস ছালাম (৩০)।

২ মার্চ অজ্ঞাত ৮জন রোহিঙ্গা ডাকাত ও ইয়াবা ব্যবসায়ি নিহত হয়।
৬ মার্চ বিকাল নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সিরাজুল ইসলামের পুত্র অজিউল্লাহ ডাকাত (৩০)।
১১ মার্চ রামু উমখালীর আব্দুল শুক্কুরের ছেলে সাইফুল ইসলাম(৩৮) ওরফে ডিবি সাইফুল ও হ্নীলা পশ্চিম লেদার নুর আহমদের ছেলে নুর কামাল (৩৪) ওরফে সোনাইয়া।
২৮ মার্চ অজ্ঞাত (১৮,১৯ ও ২১ বছর বয়সী) ৩ জন, ২৮ মার্চ হোয়াইক্যং তুলাতলীর আবুল বশরের পুত্র মুসা আকবর(৩৬)।

৬ এপ্রিল টেকনাফ পুরান পল্লান পাড়ার সোলতান আহমদের পুত্র মাহমুদ উল্লাহ(২৫), হোয়াইক্যং ঝিমংখালীর জাফর আলীর পুত্র মিজান (২৪)।
১৯ এপ্রিল সাবরাং নয়া পাড়ার জেবর মুল্লুকের পুত্র জাফর আলম (৩০)।
৬ মে রঙ্গিখালী মাদ্রাসা পাড়ার মৃত আব্দুল মজিদ ওরফে ভুলাইয়্যা বইদ্যের পুত্র নুরুল আলম (৪০), ছৈয়দ আলম (৩৫), সাব্বির আহমদের পুত্র আব্দুল মোনাফ ওরফে মইন্যা (২০),
১৬ মে সদর ইউপির মহেশখালীয়া পাড়ার সাবেক মেম্বার নুরুল ইসলামের পুত্র আরিফুল ইসলাম (২২)।
২৪ জুন রঙ্গিখালী লামার পাড়ার মৃত সোলেমানের পুত্র ঈমান হোসেন ওরফে ইমন (৩৬)।
৩ জুলাই মহেশখালীয়া পাড়ার ফজল আহমদের পুত্র আবুল কাশেম(৩২), ৬ জুলাই কুতুপালং ৫নং ক্যাম্পের মোঃ শফির পুত্র মোঃ আলম(২৬), ২নং বালুখালী ১৮নং ক্যাম্পের মোঃ এরশাদ আলীর পুত্র মোঃ ইয়াছিন (২৪)।
৭ জুলাই হ্নীলা মৌলভী বাজারের মৃত সোলতান আহমদ ওরফে চামড়া বাদশাহর পুত্র সাদ্দাম হোসেন (২০), হোয়াইক্যং পশ্চিম মহেশখালীয়া পাড়ার মৃত হাজী আলী আহমদের পুত্র আব্দুল জলিল ওরফে গুরা পুতুইক্কা(৩০)।

২৪ জুলাই কুতুপালংয়ের কালা মিয়ার পুত্র মৌলভী বখতিয়ার ওরফে বখতিয়ার মেম্বার (৫৫),কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ইউসুপ আলীর পুত্র মোঃ তাহের(২৭), বালুখালী ১নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা হাবিব উল্লাহর পুত্র মোঃ ফেরদৌস(৩০), একই ক্যাম্পের বাসিন্দা মৃত ছৈয়দ আহমদের পুত্র মোঃ আব্দুস সালাম (৩৫)।

২৮ জুলাই নয়াবাজার পূর্ব সাতঘরিয়া পাড়ার নুর আহমদের পুত্র মোহাম্মদ ইসমাঈল ওরফে ইমাইন্যা(২৫), পূর্ব মহেশখালীয়া পাড়ার মৃত হাকিম আলীর পুত্র মোঃ আনোয়ার (২৪), মৃত আব্দুস সালামের পুত্র নাছির (২৩), হোয়াইক্যং আমতলী ঘোনা পাড়ার আব্দুল মালেকের পুত্র আনোয়ার হোসেন (২৫) কথিত বন্দুক যুদ্ধে নিহত হন। একই সঙ্গে এ চার জন ছিল টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশের শেষ বন্ধুকযুদ্ধ।

বাংলাদেশে ইয়াবা আগ্রাসন নিয়ে আরও পড়ুন :

প্রদীপ একাই ১৬১ জন! পর্ব-১৫

সাংবাদিকতার সাইনবোর্ডে ইয়াবা ব্যবসা! পর্ব-১৪

মোবাইল চোর থেকে ইয়াবা গডফাদার! পর্ব-১৩

আমিন হুদা ও নিকিতা উপাখ্যান পর্ব- ১২

পবিত্র কোরআন, হেলিকপ্টার ও নারীর যৌনাঙ্গে ইয়াবা পাচার!-পর্ব ১১

টেকনাফের ইয়াবা ব্যবসায়ি কারা? পর্ব-১০

আত্মসমর্পণকারিরা ফের ইয়াবা ব্যবসায়! পর্ব-৯

বদির ৫ ভাইসহ ২৫ স্বজন ইয়াবা ব্যবসায়ি! পর্ব-৮

বদি নম্বর ওয়ান!- পর্ব ৭

রাজনৈতিক নেতা, পুলিশ ও সাংবাদিকের সঙ্গে ইয়াবা ডন সাইফুলের সখ্য! পর্ব- ৬

সিআইপি সাইফুল ও বাংলাদেশে ইয়াবার আগমন! পর্ব-৫

টেকনাফের ৮০ শতাংশ মানুষ ইয়াবা ব্যবসায় জড়িত! পর্ব-৪

টেকনাফের অর্ধশত রুটে আসে ইয়াবা!- পর্ব- ৩

মডেল-নায়িকা-শিল্পী ও শিক্ষার্থীরা কেন সেবন করে ইয়াবা? পর্ব-২

‘ইয়াবা’ কেন জনপ্রিয় মাদক? পর্ব-১

বিএনএনিউজ২৪ এআর,জিএন

Loading


শিরোনাম বিএনএ