Bnanews24.com
চট্টগ্রাম টপ নিউজ সব খবর

সিইউএফএল’র মিঠা পানির দরপত্রে  নয়-ছয়! ফের দরপত্রের দাবি

বিএনএ (চট্টগ্রাম):  চিটাগাং ইউরিয়া ফার্টিলাইজার লিমিটেড (সিইউএফএল) এর  কালুরঘাট ওয়াটার ইনটেক স্টেশনের আপ-স্ট্রীপ হতে মিঠা পানি সরবরাহের দরপত্র নিয়ে নয়-ছয় করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। দরপত্রে নানা সাংঘর্ষিক শর্ত, দরপত্র গ্রহণ এবং খোলার বিষয়ে বেশ কিছু অনিয়মের সঙ্গে জড়িত রয়েছে খোদ শীর্ষ কর্মকর্তারা! এ ঘটনায় সিএফএল মিঠা পানি সরবরাহের দরদাতাদের পাশাপাশি শ্রমিক-কর্মচারীদের মধ্যে চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, গত ৬ জানুয়ারি ২০২১ বেলা সাড়ে ১১ টায় দরপত্র গ্রহণ শেষে দুপুর আড়াইটায়  সিইউএফ’এর রাঙ্গাদিয়ায় মহাব্যবস্থাপক (বাণিজ্যিক) এর দপ্তরে  দরপত্র খেলার কথা কথা ছিল। কারিগরি প্রস্তাব খোলা হলেও আর্থিক প্রস্তাব খোলা হয়নি। উপস্থিত কয়েকজনের স্বাক্ষর নিয়ে জানিয়ে দেয়া হয়, টেলিফোনে ও ইমেলে কারিগরি প্রস্তাব উর্ত্তীণদের পরে জানানো হবে মহাব্যবস্থাপক (বাণিজ্যিক) এর দপ্তরে উপস্থিত দরদাতা ও তাদের প্রতিনিধিদের চলে যেতে বলা হয়। এতে দরপত্রে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে সন্দেহের সৃষ্টি হয়। অথচ দরপত্রের শিডিউলের ১.২  উল্লেখ করা হয়েছে দরপত্র মহাব্যবস্থাপক (বানিজ্যিক), চিটাগাং ইউরিয়া ফার্টিলাইজার লিমিটেড, রাঙ্গাদিয়া, চট্টগ্রাম, জেলা প্রশাসক, চট্টগ্রাম  ও পিডব্লিওডি, ডিভিশন-৩ সরকারি কার্য ভবন, আগ্রাবাদ, চট্টগ্রাম এর দপ্তরে রক্ষিত  টেন্ডার বাক্সে আগামী ০৬-০১-২০২১ খ্রি. তারিখ ১১.৩০ ঘটিকায় ফেলিতে হইবে এবং একই দিন অর্থাৎ ০৬-০১-২০২১ খ্রি. তারিখ ০২:৩০ ঘটিকায়  মহাব্যবস্থাপক (বানিজ্যিক) সিইউএফএল, রাঙ্গাদিয়া, চট্টগ্রাম এর দপ্তরে উপস্থিত দরদাতাদের অথবা তাহাদের অনুমোদিত প্রতিনিধিগণের উপস্থিতিতে (যদি কেহ থাকেন) দরপত্র খোলা হবে। অনিবার্য কারণবশতঃ নির্ধারিত তারিখে দরপত্র গ্রহণ কিংবা খোলা সম্ভব না হইলে পরবর্তী কার্যদিবসে দরপত্র গ্রহণ কিংবা খোলা হইবে।’

অপরদিকে দরপত্রে  ২.১ দফায় বলা হয়েছে ‘প্রথমে দরপত্রদাতাদের সম্মুখে (যদি কেহ উপস্থিত থাকেন) কারিগরি প্রস্তাব খোলা হবে। আর্থিক প্রস্তাব ঐ দিন উন্মুক্ত না করে তা সংরক্ষণ করা হইবে। যে সকল দরদাতার কারিগরি প্রস্তাব কারিগরী মূল্যায়নে গ্রহণযোগ্য হইবে শুধুমাত্র সেই সকল দরদাতাদের উপস্থিতিতে আর্থিক প্রস্তাব খোলার জন্য পত্র মারফত/ টেলিফোনে তাদেরকে অনুরোধ জানানো হইবে। যে সকল দরদাতার কারিগরি প্রস্তাব কারিগরি মূল্যায়নে অগ্রহণযোগ্য হইবে, সে সকল দরদাতার আর্থিক প্রস্তাব না খুলে দরদাতার ঠিকানায় ফেরত পাঠানো হইবে।’ দরপত্রের  দফা ১.২ এর সঙ্গে দফা ২.১ এর মধ্য রয়েছে ব্যাপক অসঙ্গতি। দফা ২.১ এর মাধ্যমে  তাদের মনোনীত প্রতিষ্ঠানকে কাজ দেওয়ার জন্য দরপত্রের দফায় সংযোজন করা হয়েছে বলে সূত্রে প্রকাশ।

দফা ৩.০  (দরপত্র সাথে দাখিলকৃত প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ) এর  ঝ তে উল্লেখ করা হয়েছে দৈনিক ১৫০০০-১৬০০০ মেট্রিক টন মিঠা পানি সরবরাহ করার জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক বার্জসহ যাবতীয় সরঞ্জামের ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে র-ওয়াটার বেসিনে সরবরাহ কাজ শুরু হবে মর্মে অঙ্গীকারনামা প্রদান করতে হবে। ফাঁকিটা এখানেই  বিশেষ প্রতিষ্ঠানকে কাজ দেওয়ার জন্য এমন শুধুমাত্র অঙ্গীকারনামা চাওয়া হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের মালিকানাধীন বা ভাড়া চালিত বার্জ এর রেজিস্টেশন সার্টিফিকেট ও সার্ভে সনদ চাওয়া হয়নি! দরপত্রে ৯টি প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করে এর মধ্যে ৩/৪টি  প্রতিষ্ঠানের বার্জের নিজস্ব বার্জ রয়েছে। শুধু কথিত  অঙ্গীকারনামার মাধ্যমে অনেক অযোগ্য  প্রতিষ্ঠান কারিগরি মূল্যায়নে গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করেছে। মাত্র একটি প্রতিষ্ঠান কারিগরি মূল্যায়নে অগ্রহণযোগ্য হয়েছে। ৮টি প্রতিষ্ঠানের দরদাতাদের  ১২ ডিসেম্বর (মঙ্গলবার) বেলা ১১ টায় মহাব্যবস্থাপক (বাণিজ্যিক) সিইউএফএল, রাঙ্গাদিয়া, চট্টগ্রাম এর দপ্তরে উপস্থিত থাকার জন্য টেলিফোন করা হয়েছে।

বেশীর ভাগ দরদাতাদের অভিযোগ, কথিত কারিগরি প্রস্তাব মূল্যায়নের নামে এক সপ্তাহ সময়ক্ষেপন করে আড়ালে আর্থিক প্রস্তাব সমূহ টেম্পারিং কিংবা বদল করা হয়েছে। তারা নয়-ছয় করা  দরপত্র নং ৩৬.০৯১.০০৭.০৯.৫২.৪০১.০৮১৭.২০২০ তারিখ: ১২-১২-২০২০ খ্রি. বাতিল করে পুনরায় দরপত্র আহ্বান করার দাবি জানিয়েছে।

বিএনএনিউজ/এইচ.এম।