Bnanews24.com
Home » বশেমুরবিপ্রবিতে ইটিই বিভাগের বিপক্ষে ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীরা
শিক্ষা সব খবর

বশেমুরবিপ্রবিতে ইটিই বিভাগের বিপক্ষে ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীরা

বশেমুরবিপ্রবিতে ইটিই বিভাগের বিপক্ষে ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীরা

বিএনএ,‌বশেমুরবিপ্রবি: গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) ইলেক্ট্রনিক্স এন্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ইটিই) বিভাগকে ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের সাথে একীভূতকরণের প্রস্তাবের বিপক্ষে সংবাদ সম্মেলন করেছে ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার (৩১ডিসেম্বর) প্রায় অর্ধশত শিক্ষার্থীর উপস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের জয় বাংলা চত্বরে এ সংবাদ সম্মেলন করেন তারা।

সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষার্থীরা বলেন, ইটিই বিভাগকে ইইই বিভাগের সাথে একীভূতকরণের এ আন্দোলন সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং অযৌক্তিক। ইটিই বিভাগ শুরু থেকেই ইইই বিভাগের সিলেবাসের সাথে সাদৃশ্য এবং চাকরির বাজারে বেহাল দশার কথা বলে আসছে। কিন্তু ইটিই এবং ইইই বিভাগের সিলেবাস বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, ইইই এর সিলেবাসের কোর্সের ১০৫ ক্রেডিটের মধ্যে ৪০ ক্রেডিটই ইটিই তে নেই । এতে ৪২ শতাংশ একেবারে নতুনভাবে পড়ার প্রয়োজন হবে, যার জন্য প্রায় দুই বছর বাড়তি সময়ের প্রয়োজন।

সংবাদ সম্মেলনে চাকরির বাজারে সুযোগের বিষয়ে তারা বলেন, “প্রত্যেক বিভাগের আলাদা স্বতন্ত্র্য সেক্টর আছে। ইইই এর সেক্টর হলো পাওয়ার এবং ইটিই এর সেক্টর কমিউনিকেশন। তাই সঠিক বিশ্লেষণ ছাড়া কর্মসংস্থান সংকট বলাটা অজুহাত মাত্র।”

এসময় শিক্ষার্থীরা আরও বলেন, ইটিই বিভাগকে ইইই এর সাথে একীভূতকরণের দাবি সম্পূর্ণ অনৈতিক ও ভিত্তিহীন এবং এই আন্দোলনকে প্রশ্রয় দেওয়া বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নিকট কোনোভাবেই কাম্য নয়।

এছাড়া ইটিই শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিয়ে প্রশাসন যদি কোনো সিদ্ধান্ত নেয় তাহলে ইইই বিভাগের সাধারণ শিক্ষার্থীরা আরো কঠোর অবস্থানে যেতে বাধ্য হবে বলেও সংবাদ সম্মেলনে হুশিয়ারি দেন ইইই শিক্ষার্থীরা

প্রসঙ্গত, করোনা মহামারির জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হবার আগে থেকেই ইটিই বিভাগ ইইই বিভাগে রুপান্তরিত হবার দাবিতে আন্দোলন ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ইটিইকে ইইইতে রুপান্তরিত করার প্রক্রিয়া গ্রহণ করে। যার প্রতিবাদে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইইই বিভাগের শিক্ষার্থীরা ২৮ ডিসেম্বর মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।

বিএনএনিউজ/ফাহীসুল হক ফয়সাল,মনির