মহাকাশ

৮০০ বছর পর ‘ক্রিসমাস স্টার’

টপ নিউজ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

দীর্ঘ সময় পেরিয়ে আবার ও বিরল ঘটনার সাক্ষী হতে যাচ্ছে পৃথিবী। ১২২৬ সালের ৪ মার্চ বৃহস্পতি ও শনি গ্রহ একে অপরের সবচেয়ে কাছাকাছি এসেছিল। এরপর কেটে গেছে প্রায় ৮০০ বছর। এই এত বছর পর, দুই গ্রহ এর চেয়েও কাছাকাছি এসে দেখা দিচ্ছে ২১ ডিসেম্বর (২০২০)।

সৌরজগতের ২১ ডিসেম্বর, পৃথিবীর দীর্ঘতম রাত আজ। এ দিন সন্ধ্যায় কয়েকশ’বছর পর আবার উজ্জ্বল দুটি গ্রহকে একসঙ্গে মিশে যেতে দেখা যাবে।

এ মহাজাগতিক ঘটনা ‘দ্য গ্রেট কনজাংশন অব ২০২০’ নামে পরিচিতি। বছরের সবচেয়ে অন্ধকার এ দিনে বৃহস্পতি ও শনি গ্রহ একসঙ্গে মিলে আসবে, আলো দেবে পৃথিবীকে।

জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা একে ‘ক্রিসমাস স্টার’ নামে উল্লেখ করেন, যার ধারণা খ্রিষ্টীয় বাইবেলের স্টার অব বেথলেহেম থেকে নেওয়া। অবশ্য অনেকে বিশ্বাস করেন ২ হাজার আগে বর্ণিত তারকা শুক্র ও বৃহস্পতির যুগলবন্দী ছিল।

জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা বলছেন, বৃহস্পতি ও শনিকে এত কাছাকাছি আসতে দেখা গিয়েছিল প্রায় ৮০০ বছর আগে। তার পরে ৪০০ বছর পরে এক বার কাছে এলেও তা পৃথিবী থেকে দেখা যায়নি। সোমবার রাতে ফের ওই দুই গ্রহকে খুব কাছাকাছি দেখতে পাবেন মানুষ।

আজ সূর্যাস্তের পরে দক্ষিণ-পশ্চিম দিগন্তে দুই গ্রহকে খুব কাছাকাছি দেখা যাবে। যদিও আকাশে খুব কাছাকাছি থাকলেও দুই গ্রহের দূরত্ব ৭৩ কোটি কিলোমিটার। এ সময় টেলিস্কোপে বৃহস্পতির দু-একটি উপগ্রহও দেখা যেতে পারে।

জানা গেছে, সৌরজগতের সর্বাপেক্ষা বৃহৎ গ্রহ বৃহস্পতি সূর্যকে প্রায় ১২ বছরে একবার প্রদক্ষিণ করে। আর শনি যেহেতু সূর্য থেকে অনেক বেশি দূরে থাকে তাই তার কক্ষপথের পরিধি বৃহস্পতির কক্ষপথের পরিধির চেয়ে অনেক বেশি। আর তাই সূর্যকে একবার প্রদক্ষিণ করতে তার লাগে প্রায় সাড়ে ২৯ বছর। অর্থাৎ শনি যখন সূর্যকে একবার প্রদক্ষিণ শেষ করে, বৃহস্পতি তখন সূর্যকে দুবার প্রদক্ষিণ করে ফেলেছে। এর ফলে প্রতি ২০ বছর অন্তর বৃহস্পতি শনিকে অতিক্রম করে এগিয়ে যায়।

বিএনএ/এমএইচ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *