Bnanews24.com
Home » এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ: তবে…
ভিডিও সংবাদ

এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ: তবে…

বিএনএ, চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম শহরের টাইগারপাস থেকে পতেঙ্গা শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে টানেল রোড পর্যন্ত ১৬ কিলোমিটার দীর্ঘ এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ কাজ বর্তমানে দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। বন্দর নগরী চট্টগ্রামের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কের যানজট নিরসনে এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ চট্টগ্রামবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি ছিল। এই এক্সপ্রেসওয়ের দেওয়ানহাট থেকে বারিক বিল্ডিং মোড় পর্যন্ত সড়কটি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে নামকরণ রয়েছে।এটি চট্টগ্রামের একমাত্র ভিআইপি সড়ক হিসেবেও পরিচিত। এই এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে হয়ে  আগ্রাবাদ বাণিজ্যিক এলাকায় অবস্থিত বিশ্ব বাণিজ্যকেন্দ্র, চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর, চট্টগ্রাম রপ্তানী প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চল(সিইপিজেড), কর্ণফুলী রপ্তানী প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চল(কেইপিজেড), নৌবাহিনীর আঞ্চলিক সদর দপ্তর, পতেঙ্গা সিবিচ, কর্ণফুলী নদীতে নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধু টানেল সড়ক ও শাহ আমানত আন্তর্জাতিক  বিমান বন্দরে খুব সহজে স্বল্প সময়ে যাতায়াত করা যাবে।

এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ কাজ শেষ হলে চট্টগ্রামের যোগাযোগ ব্যবস্থায়, উন্নয়ন ও বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে বিশাল এক পরিবর্তন পরিবর্তন আসবে, এটা সর্বজন স্বীকৃত। সে সাথে কমবে রাস্তায় যানজটে নষ্ট হওয়া সময়, মানুষের ভোগান্তি, পরিবহন খরচ।

বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর দেশে বড় বড় মেগা প্রকল্পের কাজ চলছে।বঙ্গবন্ধু কন্যা  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের উন্নয়নে এই সব প্রকল্পের মাধ্যমে দেশকে ২০৪১সালের মধ্যে উন্নত রাষ্ট্র গঠনের পদক্ষেপ নিয়েছেন।

আরও পড়ুন :চট্টগ্রামে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ কাজ আপডেট

মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড,ভারতসহ আমাদের চেয়ে অপেক্ষাকৃত উন্নত রাষ্ট্র সমূহে দেখা যায়, মেগাপ্রকল্পের কাজ চলাকালে যাতে স্থানীয়দের কোন ভোগান্তি না হয় সে জন্য পথচারী ও যানচলাচলের জন্য রাস্তা সবসময় উপযুক্ত করে রাখা হয়। এ জন্য সড়ক বিভাগ বা প্রকল্প কর্তৃপক্ষ সর্বদা সচেতন থাকে। যা আছে তা মানুষের জন্য, যা হচ্ছে তাও মানুষের সেবার জন্য।

তবে আমাদের দেশে কোন প্রকল্পের কাজ চলাকালে সংশ্লিষ্ট সড়কের অবস্থা একেবারে ভেঙ্গে পড়ে।প্রকল্পের কাজ শেষে সড়ক চূড়ান্তভাবে মেরামত করা হয়। ততদিন পর্যন্ত স্থানীয়দের সুদিনের আশায় কষ্ট ভোগ স্বীকার করতে হয়।

শেখ মুজিব সড়কের চৌমুহনী থেকে বাদামতলী মোড় পর্যন্ত করুণ অবস্থা

ভিডিও চিত্রে দেখা যায়, চট্টগ্রামের দেওয়ানহাট থেকে বারিক বিল্ডিং মোড় পর্যন্ত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে যে সড়কটি রয়েছে সেটির এখন বেহাল অবস্থা বিশেষত চৌমুহনী থেকে বাদামতলী মোড় পর্যন্ত। রাস্তার দুপাশের ফুটপাত ভাঙ্গাছোড়া।কোথাও আছে কোথাও নেই। নালায় স্ল্যাব কোথাও আছে কোথাও নেই। ভাঙ্গা। বৃষ্টি হলে সড়ক হয়ে যাচ্ছে কর্দমাক্ত।দিনে কেন রাতেও পথচলা মুশকিল।

মেগাপ্রকল্পের কাজ চলাকালে বিশেষ বিবেচনায়, সড়কটির গুরুত্ব অনুধাবন করে কোনভাবে যানচলাচল ও পথচারীদের হাঁটার উপযোগি করা স্থানীয় ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসীর দাবি।

মনসুরআলী শাহ মাজার বাড়ির বাসিন্দা মারজুক মুন্না জানান, এলাকাবাসী খুব নাজুক অবস্থায় রয়েছে।আমরাও উন্নয়নের পক্ষে।কষ্ট সবার হচ্ছে তবে সরকার যদি শেখ মুজিব সড়কের এই অংশটায় একটু বিশেষ নজর দিত হাজার হাজার মানুষ উপকৃত হত।

বিএনএনিউজ২৪ডটকম,জিএন