28 C
আবহাওয়া
৩:৪৪ অপরাহ্ণ - জুন ২০, ২০২৪
Bnanews24.com
Home » চুয়েটে প্রথম বারের মতো জাতীয় গবেষণা মেলা অনুষ্ঠিত

চুয়েটে প্রথম বারের মতো জাতীয় গবেষণা মেলা অনুষ্ঠিত


বিএনএ, চুয়েট: “স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে জ্ঞান অন্বেষণ” স্লোগানকে সামনে রেখে চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) অনুষ্ঠিত হয়েছে “গবেষণা মেলা-২০২৩”।  রোববার (২৭ আগস্ট) চুয়েটের গবেষণা ও সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে এ মেলাটি অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আখতারুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন। তিনি বলেন , “মেলার যে ধারণা, তার সঙ্গে মানুষ অন্যভাবে পরিচিত। কিন্তু গবেষণা নিয়ে মেলা, এটা একটা নতুন ধারণা। গবেষণা মেলায় নতুন-নতুন জ্ঞান সৃষ্টি ও জনসম্মুখে সেই জ্ঞানের বিতরণ দুটো কাজই একসাথে হয়ে থাকে। গবেষণার মাধ্যমে সমাজে একটা রূপান্তর ঘটে। আজকের এই গবেষণার মেলার মাধ্যমে সেই বিদ্যার আরো সম্প্রসারণ হবে বলে আমি আশাবাদী। বর্তমান বাস্তবতায় প্রকৌশল ও তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর জ্ঞানের মাধ্যমেই সেটা সম্ভব। তাছাড়া বৈশ্বিক র‌্যাংকিংয়ের প্রধান প্যারামিটার হচ্ছে গবেষণা ও উদ্ভাবন। এখন ইন্ডাস্ট্রি-একাডেমিয়া কোলাবোরেশানের যুগ। একইসাথে কমিউনিটি এনগেজমেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম কাজ। বিশ্ববিদ্যালয়ের মৌলিক দায়িত্ব হচ্ছে সমাজের বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের কাজে লাগিয়ে তাদের কল্যাণেই কাজ করা।

অনুষ্ঠানে গেস্ট অব অনার হিসেবে ছিলেন চুয়েটের মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন চুয়েটের প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সুনীল ধর, পুরকৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. সুদীপ কুমার পাল, যন্ত্রকৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. শেখ মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, তড়িৎ ও কম্পিউটার কৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সামসুল আরেফিন, স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ কামরুল হাছান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন রিসার্চ ফেয়ার-২০২৩ এর আহ্বায়ক এবং গবেষণা ও সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক ড. সজল চন্দ্র বনিক।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন রিসার্চ ফেয়ার-২০২৩ এর সদস্য সচিব অধ্যাপক ড. জি.এম. সাদিকুল ইসলাম। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ইইই বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. সম্পদ ঘোষ ও সিএসই বিভাগের প্রভাষক তাসমিয়া বিনতে হাই।

মেলায় দেশের ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রায় ৩৫০ জন শিক্ষক, গবেষক, প্রকৌশলী, উদ্যোক্তা, প্রফেশনাল ও শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা বসে। যেখানে চূড়ান্তভাবে বাছাইকৃত মোট ১৩১টি গবেষণা প্রবন্ধ (৯৪টি পোস্টার ও ৩৭টি প্রজেক্ট) দুইভাগে বিভক্ত হয়ে উপস্থাপন করা হয়।

বিএনএ/ রব্বানী, এমএফ/ হাসনাহেনা

Loading


শিরোনাম বিএনএ