রপ্তানী আয় বাড়াতে থাইল্যান্ডে ‘ওয়ার রুম’ হচ্ছে

থাইল্যান্ডের বাণিজ্য মন্ত্রাণালয়ের দায়িত্ব প্রাপ্ত উপপ্রধানমন্ত্রী জুরিন লাকসানাউইসিট দেশটির রপ্তানী আয় ৩শ বিলিয়ন বাথ বাড়াতে তার মন্ত্রণালয় ও রপ্তানিকারকদের সমন্বয়ে একটি যৌথ কমিটির জন্য একটি ‘ওয়ার রুম’ও গঠন করার ঘোষণা দিয়েছেন।

আরো পড়ুন

রমজানে ভোগ্যপণ্যের এলসি স্বাভাবিক করতে চিঠি

চিনির দাম আরেক দফা বৃদ্ধি

১০৭ টাকা রেমিট্যান্সের দর মানছে না ব্যাংক

শুক্রবার তিনি বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা, প্রাসঙ্গিক রাষ্ট্রীয় সংস্থা এবং রপ্তানির সাথে জড়িত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান একটি ‘ওয়ার রুম’ এর সাথে সম্পৃক্ত হবেন।

তিনি বলেন, তিনটি প্রধান বাজার এই বছর আনুমানিক ১.৭ ট্রিলিয়ন বাথ রপ্তানি আয় করেছে, যা আগামী বছর আরও ৩০০ বিলিয়ন বাথ বেড়ে ২ ট্রিলিয়ন হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

উপপ্রধানমন্ত্রী জুরিন লাকসানাউইসিট বলেন, “আমরা ২০২৩ জুড়ে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করব যাতে ২০২১ এবং ২০২২ সাল থেকে বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক মন্দা এবং সমস্যাগুলি মোকাবেলা করা যায়,”।

সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই) এবং কাতার: খাদ্য, গাড়ির যন্ত্রাংশ, এয়ার-কন্ডিশনার এবং নির্মাণ সামগ্রী আমদানিকারক

মি. জুরিন বলেন, মধ্যপ্রাচ্যের বাজারের ফোকাস সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই) এবং কাতারের ওপর থাকবে, যারা খাদ্য, গাড়ির যন্ত্রাংশ, এয়ার-কন্ডিশনার এবং নির্মাণ সামগ্রী আমদানিকারক। তিনি বলেন, পরের বছরের লক্ষ্য হবে এই তিনটি দেশে রপ্তানি ২০% বৃদ্ধি করা – এই বছরের ৮.৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার (৩১০ বিলিয়ন বাহট) থেকে পরের বছর ১০.৩ বিলিয়ন ডলার।

বাংলাদেশ : রাসায়নিক পণ্য, প্লাস্টিক প্লেট, অটোমোবাইল এবং গাড়ির যন্ত্রাংশ আমদানি করে

দক্ষিণ এশিয়ার বাজার সম্পর্কে, ভারত, বাংলাদেশ এবং নেপালের ওপর ফোকাস করা হবে, যা মূলত রাসায়নিক পণ্য, প্লাস্টিক পেলেট, অটোমোবাইল এবং গাড়ির যন্ত্রাংশ আমদানি করে। লক্ষ্য রপ্তানি মূল্য ১০% বৃদ্ধি করা – এই বছরের ১২ বিলিয়ন ডলার থেকে পরের বছর ১৩.২ বিলিয়ন ডলার।

CLMV নির্মাণসামগ্রী, বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি, প্লাস্টিকের বড়ি, টেক্সটাইল আমদানী কারক

CLMV (কম্বোডিয়া, লাওস, মায়ানমার এবং ভিয়েতনাম) বাজারের জন্য, লক্ষ্য হল রপ্তানি মূল্য ১০-১৫% বৃদ্ধি করা — এই বছর $২৮ বিলিয়ন থেকে পরের বছর $৩৩.৫ বিলিয়ন। এই দেশগুলো মূলত নির্মাণসামগ্রী, বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি, প্লাস্টিকের বড়ি, টেক্সটাইল, খাদ্যপণ্য, ফলমূল ও শাকসবজি আমদানি করে।

 “মিনি” মুক্ত বাণিজ্য চুক্তির জন্য সরকারকে তাগাদা 

বাণিজ্যমন্ত্রীর মতে, রাপ্তানী আয় বাড়াতে যৌথ পাবলিক-প্রাইভেট কমিটি শুক্রবার ইউএই, ভারত এবং চীনের ইউনান প্রদেশে থাই প্রতিনিধিদের পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্যানেলটি যুক্তরাজ্য, পাকিস্তান এবং পারস্য উপসাগরীয় রাজ্যগুলির কিছু শহরগুলির সাথে “মিনি” মুক্ত বাণিজ্য চুক্তির জন্য থাইল্যান্ডের আলোচনা ত্বরান্বিত করার জন্য সরকারকেও অনুরোধ করেছে, তিনি বলেন।

সূত্র: Thai businesses target three major markets to boost exports next year

বিএনএনিউজ২৪,জিএন