Bnanews24.com
Home » চট্টগ্রামের কর্ণফুলীতে কন্যাকে ধর্ষণ, পিতা গ্রেপ্তার
অপরাধ বৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃহত্তর চট্টগ্রাম সব খবর

চট্টগ্রামের কর্ণফুলীতে কন্যাকে ধর্ষণ, পিতা গ্রেপ্তার

কর্ণফুলীতে ১৩ বছরের মেয়েকে ধর্ষণের মামলায় বাবা গ্রেপ্তার

বিএনএ,চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামের কর্ণফুলীতে ১৩ বছরের মেয়েকে ধর্ষণের মামলায় সৎ বাবা মো. আইয়ুব (৪২) কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।সোমবার (২২ জুন) বিকেলে কর্ণফুলী থানার চরলক্ষ্যা ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তার আইয়ুব পটিয়া উপজেলার জিরি ইউনিয়নের মৃত উকিল আহমদের ছেলে। আজ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দুলাল মাহমুদ।

মামলার এজাহার সূত্র জানা যায়, ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরীর বাবা মারা যাওয়ার পর তার মা মো. আইয়ুবকে বিয়ে করেন। আগের সংসারের তিন মেয়ের মধ্যে দুই মেয়ে তাদের বাবার বাড়িতে দাদির সাথে থাকে। ছোট মেয়ে ও বোনকে নিয়ে দ্বিতীয় সংসারে কিশোরীর মা আইয়ুবের সঙ্গে উপজেলার চরলক্ষ্যা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের খুইদ্দারটেকে মাহবুবের ভাড়া বাসায় থাকেন। কিশোরীর মা ও খালা স্থানীয় একটি পোশাক কারখানায় চাকুরি করেন।

শুক্রবার সকালে কিশোরীর মা তার মেয়ে  ও বোনকে বাসায় রেখে চাকরিতে যান। এদিন দুপুর ১ টার দিকে কিশোরীর খালা ওষুধ আনার জন্য ফার্মেসিতে যান। এ সুযোগে অভিযুক্ত আইয়ুব ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করেন। দুপুর দেড়টার দিকে কিশোরীর খালা ফার্মেসি থেকে বাসায় ফিরে ঘরের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ দেখে ডাকাডাকি করলেও কোন সাড়া শব্দ পাননি। একপর্যায়ে আইয়ুব দরজা খুলে দ্রুত ঘর থেকে বেরিয়ে যান। পরে কিশোরী তার খালাকে জানায় তাকে প্রাণ নাশের ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করেছেন আইয়ুব। এরপর রাত ৮ টার দিকে কিশোরীর মা বাসায় ফিরলে খালা কিশোরীর মাকে সব ঘটনা জানায়।

ওই সময় কিশোরী জানায়, গত দুই বছর ধরে তার মা ও খালা চাকরিতে গেলে আইয়ুব তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। এ ঘটনা কাউকে জানালে তার ক্ষতি করারও হুমকি দেন আইয়ুব। ঘটনা জানাজানি হওয়ার চারদিন পর সোমবার কর্ণফুলী থানায় মামলা করেন ওই কিশোরীর মা।  এ ব্যাপারে ধর্ষণের শিকার কিশোরীর মা জানান, তার স্বামী মেয়ের সঙ্গে এমন করতে পারেন চিন্তাও করেননি। আইয়ুবের হুমকির ভয়ে তারা পুলিশের কাছে যেতে পারেননি বলেও জানান তিনি।

কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দুলাল মাহমুদ বলেন, কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে সৎ বাবাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ঘটনায় জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছেন। কিশোরীকে পরীক্ষার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারের পাঠানো হয়েছে এবং ডিএনএ টেস্ট করার জন্য নমুনা নিতে আবেদন করা হয়েছে।

বিএনএনিউজ২৪.কম/এনএএম