Bnanews24.com
Home » কারাগারের রোজনামচা : পর্ব-৪৪
কারাগারের রোজনামচা

কারাগারের রোজনামচা : পর্ব-৪৪

কারাগারের রোজনামচা

সরকার কর্মীদের বন্দি করেও অত্যাচার করেছে, ২৪ ঘণ্টা তালা বন্ধ করে রেখেছে জেলের মধ্যে। নারায়ণগঞ্জে মোস্তফা সারওয়ার, শামসুল হক ভূতপূর্ব এম পিএ, হাফেজ মুছা সাহেব, আবদুল মোমিন এডভোকেট, ওবায়দুর রহমান, শাহাবুদ্দিন চৌধুরীর মতো নেতৃবৃন্দকে ‘সি’ ক্লাস করে রাখা হয়েছে । কি করে এই সরকার সভ্য সরকার বলে দাবি করতে পারে আমি ভেবেও পাই না!

আজাদ যেটুকু সংবাদ পরিবেশন করিতেছে তাহাতে ধন্যবাদ না দিয়ে পারা যায় না আমি একা থাকি, আমার সাথে কাহাকেও মিশতে দেওয়া হয় না । একাকী সময় কাটানো যে কত কষ্টকর তাহা যাহারা ভুক্তভোগী নন বুঝতে পারবেন না । আমার নিজের উপর বিশ্বাস আছে, সহ্য করার শক্তি খোদা আমাকে দিয়েছেন । ভাবি শুধু আমার সহকর্মীদের কথা । এক এক জনকে আলাদা আলাদা জেলে নিয়ে কিভাবে রেখেছে? ত্যাগ বৃথা যাবে না, যায় নাই কোনোদিন । নিজে ভোগ নাও করতে পারি, দেখে যেতে নাও পারি, তবে ভবিষ্যৎ বংশধররা আজাদী ভোগ করতে পারবে । কারাগারের পাষাণ প্রাচীর আমাকেও পাষাণ করে তুলেছে। এ দেশের লক্ষ লক্ষ কোটি কোটি মা-বোনের দোয়া আছে আমাদের উপর। জয়ী আমরা হবই। ত্যাগের মাধ্যমেই আদর্শের জয় হয়

বিকালে বাগানে কাজ করতে শুরু করলাম। সময় তো আমার কাটে না । আলাপ করার লোক তো নাই । লাউয়ের দানা লাগাইয়াছিলাম, গাছ হয়েছে ।

ঝিংগার গাছও বেড়ে উঠেছে। ফুলের বাগানটিকে নতুন করে সাজাইয়া গোছাইয়া করতে শুরু করেছি। বেশ সুন্দর দেখতে হয়েছে। আজকাল সকলেই প্রশংসা করে । নতুন জীবন পেয়েছে ফুলের গাছগুলি ।

৭ই জুন ১৯৬৬ ॥ মঙ্গলবার

সকালে ঘুম থেকে উঠলাম । কি হয় আজ? আবদুল মোনায়েম খান যেভাবে কথা বলছেন তাতে মনে হয় কিছু একটা ঘটবে আজ । কারাগারের দুর্ভেদ্য প্রাচীর ভেদ করে খবর আসলো দোকান-পাট, গাড়ি, বাস, রিকশা সব বন্ধ । শান্তিপূর্ণভাবে হরতাল চলেছে। এই সংগ্রাম একলা আওয়ামী লীগই চালাইতেছে । আবার সংবাদ পাইলাম পুলিশ আনছার দিয়ে ঢাকা শহর ভরে দিয়েছে। আমার বিশ্বাস নিশ্চয়ই জনগণ বে-আইনী কিছুই করবে না। শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ করার অধিকার প্রত্যেকটি গণতান্ত্রিক দেশের মানুষের রয়েছে । কিন্তু এরা শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ করতে দিবে না ।

আবার খবর এল টিয়ার গ্যাস ছেড়েছে। লাঠি চার্জ হতেছে সমস্ত ঢাকায় । আমি তো কিছুই বুঝতে পারি না। কয়েদিরা কয়েদিদের বলে । সিপাইরা সিপাইদের বলে এই বলাবলির ভিতর থেকে কিছু খবর বের করে নিতে কষ্ট হয় না । তবে জেলের মধ্যে মাঝে মাঝে প্রবল গুজবও রটে।

অনেক সময় এসব গুজব সত্যই হয়, আবার অনেক সময় দেখা যায় একদম মিথ্যা গুজব । কিছু লোক গ্রেপ্তার হয়ে জেল অফিসে এসেছে । তার মধ্যে ছোট ছোট বাচ্চাই বেশি রাস্তা থেকে ধরে এনেছে । ১২টার পরে খবর পাকাপাকি পাওয়া গেল যে হরতাল হয়েছে, জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে হরতাল পালন করেছে । তারা ছয়দফা সমর্থন করে আর মুক্তি চায়, বাঁচতে চায়, খেতে চায়, ব্যক্তি স্বাধীনতা চায় । শ্রমিকদের ন্যায্য দাবি, কৃষকের বাঁচবার দাবি তারা চায় –এর প্রমাণ এই হরতালের মধ্যে হয়েই গেল । চলবে

সূত্র : কারাগারের রোজনামচা, পৃষ্ঠা ৬৮-৬৯, লেখকঃ শেখ মুজিবুর রহমান, প্রকাশকালঃ ফাল্গুন ১৪২৩/ মার্চ ২০১৭

পড়ুন আগের পর্ব :

কারাগারের রোজনামচা : পর্ব-৪৩

কারাগারের রোজনামচা : পর্ব-৪২

কারাগারের রোজনামচা : পর্ব-৪১

গ্রন্থনা ও পরিকল্পনাঃ ইয়াসীন হীরা, সম্পাদনাঃ হাসিনা আখতার মুন্নী,এসজিএন