চট্টগ্রামে ৫ ইটভাটা উচ্ছেদ

বিএনএ,চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার নানুপুর ও খিরাম এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৫টি অবৈধ ইটভাটা উচ্ছেদ করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় ২টি ইটভাটার মালিককে ৬ লাখ ৯৯ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

আরো পড়ুন

দুর্গম সীমান্ত সড়ক পরিদর্শনে সেনাপ্রধান

‘চট্টগ্রাম শাহী জামে মসজিদ বিল’ পাস

ববিতে ৩৭৭ আসন ফাঁকা, ভর্তির ৯ম বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) পরিবেশ অধিদফতরের সহায়তায় পরিচালিত এই উচ্ছেদ অভিযানে নেতৃত্ব দেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আলী হাসান।

উচ্ছেদকৃত ইটভাটাগুলো হলো- উপজেলার খিরাম এলাকার মের্সাস খাজা মঈনুদ্দিন চিশতী ব্রিকস ম্যানুফ্যাকচারিং, মেহেরুজ্জাহা রহঃ ব্রিকস, মেসার্স এবি ব্রিকস ম্যানুফ্যাকচারিং, শাহ আমানত ব্রিকস ও নেক্সাস ব্রিকস। অভিযানে ইটভাটা গুলোর কাঁচা ইট, চুলা ও চিমনি ধ্বংস করা হয়।

এদিকে ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন ২০১৩ অনুযায়ী মেসার্স এ বি ব্রিকস ম্যানুফ্যাকচারিং ৪ লাখ ৯৯ হাজার এবং মেসার্স শাহ আমানত ব্রিকস ফিল্ডকে ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

জানা যায়, ইটভাটাগুলোর জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে প্রদত্ত লাইসেন্স নেই, নেই পরিবেশগত ছাড়পত্র বা অবস্থান নির্ধারণের ছাড়পত্র, বন বিভাগের ছাড়পত্র ও বিএসটিআইয়ের মানপত্র। কৃষি জমি ও পাহাড় থেকে মাটি নিয়ে ইট উৎপাদিত হয়ে আসছিল। কোন কোন ইটভাটার পঞ্চাশ থেকে ১০০ মিটারের মাঝেই রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

ম্যাজিস্ট্রেট মো. আলী হাসান জানান, ফটিকছড়ি উপজেলায় অভিযান পরিচালনা করে ৫টি ইটভাটা উচ্ছেদ করা হয়। এরমধ্যে ২টি ইটভাটাকে ৬ লাখ ৯৯ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, পরিবেশ অধিদপ্তরের তথ্যানুযায়ী ফটিকছড়ি উপজেলায় ৪১টি ইটভাটা অবৈধ। ফলে পর্যায়ক্রমে সবগুলো ইটভাটা উচ্ছেদ করা হবে।

অভিযানে পরিবেশ অধিদফতর চট্টগ্রামের সহকারী পরিচালক মো. আফজালুর ইসলাম ছাড়াও জেলা পুলিশ, ফটিকছড়ি থানা পুলিশ, র‌্যাব-৭ এর একটি দল এবং ফায়ার সার্ভিসের একটি দল অংশ নেন।

বিএনএনিউজ/মনির