Bnanews24.com
Home » ২০২১ সালে ধর্ষণের চিত্র ছিল উদ্বেগজনক
অপরাধ কভার বিশেষ সংবাদ সব খবর

২০২১ সালে ধর্ষণের চিত্র ছিল উদ্বেগজনক

ধর্ষণে

।।আর করিম চৌধুরী।।

বিএনএ ডেস্ক: ২০২১ সালে নারী-শিশুদের প্রতি যৌন সহিংসতার পারদ  উর্ধ্বমুখী ছিল। বছরজুড়ে যৌন হয়রানি, সহিংস আক্রমণ, শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন এবং ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনা অনেক ঘটেছে। পারিবারিক নির্যাতনও বেড়েছে। যদিও আগের দুই-একটি ঘটনার প্রতিবাদ ও বিচারপ্রক্রিয়াতে জনমতে স্বস্তি আনলেও বেশিভাগ মামলার দীর্ঘসূত্রিতা সমালোচনা জন্ম দিয়েছে।

চলতি বছরের শেষে ২২ ডিসেম্বর কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের লাবনী পয়েন্ট থেকে ২৫ বছর বয়সী এক নারী পর্যটককে তুলে নেয় একটি সংঘবদ্ধ চক্র। ওই নারীর স্বামী-সন্তানকে জিন্মি করে এবং হত্যার হুমকি দিয়ে কয়েক দফা ধর্ষণ করে বলে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠেছে। একই সময়ে বান্দরবানের লামায় দুই সন্তানকে আটকে রেখে ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে।

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে উচ্চ স্বরে গান বাজিয়ে চলন্ত বাসে এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ ওঠেছে। গত ১৯ ডিসেম্বর রাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে উপজেলার মদনপুর বাসস্ট্যান্ডের কাছে এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে চালক, হেলপারসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

২১ নভেম্বর রাজধানীর একটি বাসে অর্ধেক (হাফ) ভাড়া দেয়ায় প্রকাশ্যে এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের হুমকির অভিযোগ ওঠে। অভিযোগকারী শিক্ষার্থী বদরুন্নেসা কলেজের উচ্চমাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। ওই ছাত্রীর অভিযোগ, ঠিকানা এক্সপ্রেস লিমিটেডের বাসে হাফ ভাড়া দেয়ায় ওই গাড়ির চালকের সহকারী বাস থেকে নামার সময় তাকে ধর্ষণের হুমকি দেয়। তবে, বাসটি দ্রুত চলে যাওয়ায় হুমকিদাতার নাম জানতে বা গাড়ির নম্বর লিখে নিতে পারেনি সেই ছাত্রী। এই ঘটনার প্রতিবাদে রোববার আন্দোলনে নামে বদরুন্নেসা কলেজের শিক্ষার্থীরা। পরে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে আন্দোলন স্থগিত করেন তারা।

২০২১ সালের এপ্রিল মাস থেকে আলোচনায় ছিল হেফাজত নেতা মামুনুল হকের নারীকাণ্ড। ৩ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে রয়্যাল রিসোর্টে এক নারীর সঙ্গে অবস্থান করছিলেন তিনি। ওই সময় মামুনুল হককে ঘেরাও করেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। পরে পুলিশ তাদের আটক করে নিয়ে থানায় নিয়ে যায়। ৩০ এপ্রিল সকালে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দুই বছর ধরে ধর্ষণের অভিযোগে মামুনুল হকের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও থানায় মামলা দায়ের করেন ওই নারী। যাকে দ্বিতীয় স্ত্রী দাবি করেছিলেন মামুনুল হক।

এই অপরাধের ক্ষেত্রে পুলিশও বাদ যায়নি। ৮ ডিসেম্বর রাতে বাগেরহাটের একটি হোটেলে ঢুকে শিশুর সামনে মাকে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে পুলিশের এক এসআইয়ের বিরুদ্ধে। ঘটনার পর তাকে গ্রেফতার করা হয়।

সংবাদ মাধ্যমগুলোর দেয়া তথ্য অনুযায়ী, সারাদেশে নারী-শিশুদের প্রতি যৌন সহিংসতা-নিপীড়ন ছিল ২০২০ সালের তুলনায় অনেক বেশি। এর মধ্যে ধর্ষণের চিত্রটা উদ্বেগজনক। বিশেষ করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, রাস্তাঘাট, পরিবহন, বাসাতে এসব ঘটনা বেশি ঘটেছে।

বেসরকারি সংগঠন, আইন ও সালিশ কেন্দ্র জানিয়েছে, ২০২১ জানুয়ারি থেকে নভেম্বর-এই ১১ মাসে পারিবারিক নির্যাতন ১০ শতাংশ বেড়েছে। ৭ শতাংশ বেড়েছে পারিবারিক নির্যাতনকে ঘিরে হত্যা, আত্মহত্যারসহ মৃত্যুর ঘটনা। দেশে যৌতুকের কারণে ১৯৭টি নারী নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। এর মধ্যে ৪০ জনকে হত্যা করা হয়েছে।

নির্যাতনকারীদের মধ্যে মাদ্রাসা শিক্ষক, সাজাপ্রাপ্ত আসামি ও পুলিশের নাম আলোচনায় রয়েছে। স্বামীর হাতে নির্যাতনের ঘটনা বরাবরের মতোই বেশি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও হয়রানির সংখ্যা বেড়েছে।

আইন ও সালিশ কেন্দ্র জানায়, ২০২১ সালে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে ১ হাজার ২৪৭টি, ধর্ষণের পর হত্যার শিকার হয়েছেন ৪৬ জন। এছাড়া গৃহকর্মী নির্যাতন হয়েছেন ৪১জন, যৌন হয়রানির ঘটনা ঘটেছে ১৯৬টি।

বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির দেয়া তথ্য অনুযায়ী বিদায়ী বছরের প্রথম ১০ মাসে দেশে ধর্ষণ সংক্রান্ত ১ হাজার ১৮২টি ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে ধর্ষণ ৯৫৫টি, দলবদ্ধ ধর্ষণ ২২০টি ও ধর্ষণের চেষ্টা ২৫৯টি। অর্থাৎ দিনে প্রায় চারটি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। একই সময়ে রাস্তা, যানবাহন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, কর্মক্ষেত্র, এমনকি বাড়িতে দেশের প্রায় ৮৪ শতাংশ নারী যৌন হয়রানির শিকার হয়েছেন বলে জানায় তারা।

জাতীয় কন্যাশিশু অ্যাডভোকেসি ফোরাম তথ্য মতে, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে আগস্ট পর্যন্ত আট মাসে ৮১৩ কন্যাশিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এছাড়া ১৪৭ কন্যাশিশু অপহরণ ও পাচারের শিকার হয়েছে। বাল্যবিয়ে বেড়েছে ১০ শতাংশ।

বাল্যবিয়ে:-

বছরের সেপ্টেম্বর মাস থেকে আলোচনায় আসে বাল্যবিবাহের ঘটনা। করোনা মধ্যে সাতক্ষীরায় আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে বাল্যবিয়ে। দীর্ঘ দিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কারণে মেয়েদের গোপনে বিয়ে দেন অভিভাবকরা। এই সময়ে জেলার দুইটি স্কুলে ১১৭ জন স্কুলছাত্রী বাল্যবিয়ের শিকার হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র থেকে জানা গেছে।

দারিদ্র্য, এলাকায় বখাটেদের ইভটিজিং, অপহরণ চেষ্টা এবং অ্যাসিড নিক্ষেপের আতঙ্কে মেয়েদেরকে বয়স ১৮ বছর পূর্ণ না হতেই বিয়ে দিতে বাধ্য হয়েছেন অভিভাবকরা।

সংবাদ মাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী, বাল্যবিয়ের শিকার শিক্ষার্থীদের বয়স সর্বোচ্চ ১৭ বছর। এর মধ্যে বেশিরভাগের বয়স ১৬ বছর অথবা তার নিচে। ষষ্ঠ শ্রেণি এবং সপ্তম শ্রেণিতে পড়া অবস্থাতেই অনেকে বাল্যবিয়ের শিকার হচ্ছেন।

বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের এক গবেষণা বলছে, দেশে করোনার কারণে বাল্যবিয়ে শতকরা ১৩ ভাগ বেড়েছে৷ যা গত ২৫ বছরে বাংলাদেশে সর্বোচ্চ৷

নাটোরের বাগাতিপাড়া মহিলা মাদ্রাসা থেকে ২০২১ সালে অনুষ্ঠিত দাখিল পরীক্ষায় মোট ৯৮ ছাত্রীর অংশ নেয়ার কথা ছিল। কিন্তু করোনাকালে বাল্যবিয়ে হয়ে যাওয়ায় তাদের কেউই পরীক্ষা কেন্দ্র আসেননি। এদের মধ্যে ১৫ জনের পরিবারের কাছে পরীক্ষার প্রবেশপত্র পৌঁছে দেয়া হলেও তারা পরীক্ষা দেননি।

পারিবারিক নির্যাতন:-

জাতীয় নারী নির্যাতন প্রতিরোধের ফোরাম (জেএনএনপিএফ) জানিয়েছে, করোনার সময়ে ২০২১ সালে নারীর প্রতি পারিবারিক সহিংসতা উদ্বেগজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। করোনাকালীন পুরুষের অতিরিক্ত ঘরে অবস্থানসহ বেশ কয়েকটি কারণে এসব সহিংসতা বেড়েছে।

সংগঠনটি দাবি করেছে, করোনার সময়ে মানুষের আয় হ্রাস, কর্মসংস্থানের অভাব, সীমিত বিচারিক কার্যক্রম, মামলার বিষয়ে অনাগ্রহ, পুরুষের অতিরিক্ত ঘরে অবস্থান ইত্যাদি কারণে নারীর প্রতি সহিংসতা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে।

৩ সেপ্টেম্বর নড়াইলের কালিয়ায় যৌতুক না দেয়ায় স্বামীর বিরুদ্ধে এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ ওঠেছে । জানা গেছে, সদরের দিপালী বিয়ের পর স্বামী রকিবুলের পরিবারকে কয়েক দফায় বাবার বাড়ি থেকে এনে ২ লাখ টাকা যৌতুক দেন। কিন্তু স্বামী আরও যৌতুকের জন্য ওই গৃহবধূকে চাপ দেন। রাজি না হওয়ায় তাদের মধ্যে চলে পারিবারিক কলহ। এরই জেরে তাদের মধ্যে বাগ্বিতণ্ডা হয়।  একপর্যায়ে রকিবুল হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে দিপালীকে হত্যা করে বলে অভিযোগ করেন স্বজনরা।

একই মাসে ১১ সেপ্টেম্বর আবু সাঈদ নামে এক পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়ায় স্ত্রীকে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করার অভিযোগ ওঠে। কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন মারধরের শিকার গৃহবধূ। জানা গেছে, ২ বছরে আগে  চুয়াডাঙ্গা জেলা দামুড়হুদা উপজেলার হাতি ভাঙ্গা গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে আবু সাঈদের সঙ্গে নির্যাতিতার বিয়ে হয়। কিন্তু দাবি-দাওয়া পূরণ করে বিয়ের পরও নতুন করে যৌতুক দাবি এবং ছোটখাট বিভিন্ন কারণে নির্যাতনের শিকার হতেন ওই গৃহবধূ। পরবর্তীতে আবারও যৌতুক দিতে রাজি না হওয়ায় গৃহবধূকে পিটিয়ে আহত করেন স্বামী।

জেএনএনপিএফ’র দেয়া  তথ্য অনুয়ায়ী, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে অক্টোবর পর্যন্ত দেশের ২০টি জেলায় ৬০৯ টি পারিবারিক নির্যাতন, ৪২ টি ধর্ষণ, ২৩৯ টি যৌতুকের জন্য নির্যাতন এবং ১১২ টি বাল্যবিবাহের মত ঘটনার অভিযোগ তাদের কাছে এসেছে। এই সময়ে ৭২ টি বহু বিবাহ, ৭৩ টি তালাক, ১ টি হত্যা ও ৫ টি আত্মহত্যা, ১৩২ টি দাম্পত্য কলহ এবং অন্যান্য ৯৪ টি ঘটনাসহ সর্বমোট এক হাজার ৩৭৯ টি অভিযোগ নথিভুক্ত করা হয়। তবে এই এক হাজার ৩৭৯টি মামলার মধ্যে ৮৬৩টি নিষ্পত্তি হয়েছে এবং ৪২২টি মামলা চলমান রয়েছে বলে জানায় সংগঠনটি।

বিএনএনিউজ/আরকেসি