Bnanews24.com
Home » শিক্ষক হেনস্থায় জবি শিক্ষক সমিতি ও নীল দলের প্রতিবাদ
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা সব খবর

শিক্ষক হেনস্থায় জবি শিক্ষক সমিতি ও নীল দলের প্রতিবাদ

শিক্ষক হেনস্থায় জবি শিক্ষক সমিতি ও নীল দলের প্রতিবাদ

বিএনএ, জবি : নড়াইলে কথিত ধর্ম অবমাননা কারীকে আশ্রয় দেওয়ার অভিযোগে মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসেকে হেনস্তা করা এবং সাভারের আশুলিয়ায় কলেজ শিক্ষক উৎপল কুমার সরকারকে হত্যা এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ও পদার্থ বিজ্ঞানী ডক্টর অরুণ কুমার কে জমি সংক্রান্ত বিষয়ে হেনস্থা করায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

বৃহস্পতিবার( ৩০ জুন) বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার চত্বরে শিক্ষক সমিতি উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে এই নিন্দা প্রস্তাব ও দোষীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির দাবি জানানো হয়।

সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক বলেন, শিক্ষকদের হেনস্তা, লাঞ্চিত এবং হত্যা এটা আমাদের জাতির জন্য কলঙ্ক। পিতামাতার পরেই যে শিক্ষদের অবস্থান সেখানে তাদের এ অপমান সহ্য করার মত নয়। তাই আমি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বলবো অতি দ্রুত দোষীদের বিচারের মুখোমুখি করে একটা দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে যেন পরবর্তীতে আর কেউ শিক্ষকদের এভাবে অপমান হেনস্তা করতে সাহস না করে।

উক্ত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবুল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. আবুল কালাম মোঃ লুৎফর রহমান এর সঞ্চালনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডিন, ইনষ্টিটিউটের পরিচালকবৃন্দ, বিভাগীয় চেয়ারম্যানবৃন্দ, শিক্ষকবৃন্দ, কর্মকর্তা – কর্মচারীবৃন্দ ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

অন্যদিকে বুধবার (২৯শে জুন) জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় নীলদলের একাংশের সাধারণ সম্পাদক ড. মো: আনোয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে দেশ জুড়ে শিক্ষক লাঞ্ছনার প্রতিবাদ ও তদন্তের দাবি জানানো হয়।

এতে বলা হয়, গত ১৭ই জুন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কথিত ধর্ম অবমাননার পোস্টে সমর্থনের অভিযোগে নড়াইলের সদর উপজেলার মির্জাপুর ইউনাইটেড কলেজের সম্মানিত ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসের গলায় জুতার মালা পরানো হয়। এছাড়া, গত ২৫শে জুন সাভারের আশুলিয়ায় হাজী ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক উৎপল কুমার সরকার একজন উচ্ছৃঙ্খল শিক্ষার্থীর দ্বারা আক্রান্ত হন এবং পরবর্তীতে ২৭ জুন আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। দুটি ঘটনাই সামাজিক অস্থিরতার চরম বহিঃপ্রকাশ যা একটি উন্নত ও সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ গড়ার অন্তরায়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় নীলদল গভীর উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছে যে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বাংলাদেশ যখন বিভিন্ন ক্ষেত্রে দ্রুত উন্নয়ন সাধন করছে এবং বিশ্বের বুকে মাথা তুলে দাঁড়িয়েছে তখন কিছু কুচক্রিমহল এই অর্জনকে নস্যাৎ করার জন্য ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়ে বিভিন্নভাবে দেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় নীলদল এই অশুভচক্রকে শক্ত হাতে দমনের জন্য জোর দাবি জানাচ্ছে।

বিএনএ/ সাহিদুল, ওজি