নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশ্ব ফার্মাসিস্ট দিবস পালিত

বিএনএ, নর্থ সাউথ: ফার্মাসিস্টদের অক্লান্ত পরিশ্রম এবং সাস্থ্য সেবা খাতে তাদের অবদানকে সম্মান জানিয়ে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে “বিশ্ব ফার্মাসিস্ট দিবস ২০২২ ” পালিত। রোববার ( ২৫ সেপ্টেম্বর) নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় ফার্মাসিউটিক্যাল ক্লাব এবং ফার্মাসিউটিক্যাল সাইন্সেস অনুষদের সহযোগীতায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গনে আয়োজিত হয়।

আরো পড়ুন

কাতার ফুটবল বিশ্বকাপে সেমিতে যাওয়ার লড়াই

বাংলাদেশের সিরিজ জয়, আনন্দবাজার যা লিখেছে

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে শুভ উদ্বোধন করেন নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত উপ-উপাচার্য ড. এম ইসমাইল হোসাইন। এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন স্কুল অফ হেলথ এন্ড লাইফ সায়েন্সের এর সম্মানিত ডিন প্রফেসর ডঃ হাসান মাহমুদ রেজা, ফার্মাসিউটিক্যাল সাইন্সেস অনুষদের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. জিএম সায়েদুর রহমান এবং অনুষদের শিক্ষকবৃন্ধ, ও হবে অনুষদের শিক্ষার্থীবৃন্ধ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ড. এম ইসমাইল হোসাইন ফার্মেসি অনুষদের নিয়মিত এসব সচেতনতামূলক ইভেন্ট দেখে নিজের অনুভূতি প্রকাশ করেন। ইন্ডাস্ট্রি সহ ওষুধ এর গুনগত মাননিয়ন্ত্রন, ওষুধের মান নিশ্চিতকরণ এর ক্ষেত্রে ফার্মাসিস্ট দের ভূমিকা তিনি আবারও মনে করিয়ে দেন।

তিনি আরো বলেন, “সুস্থ্য, নিরাপদ পৃথিবী তৈরিতে এবং ভাইরাসজনিত রোগ দমনে ফার্মাসিস্ট দের ভূমিকা দারুণ প্রশংসনীয়”।

স্কুল অফ হেলথ এন্ড লাইফ সায়েন্সের এর সম্মানিত ডিন প্রফেসর ডঃ হাসান মাহমুদ রেজা ফার্মাসিস্ট দের যথাযথ সম্মান নিশ্চিত এর বিষয়ে বলেন এবং ভবিষ্যতে এর উন্নতি হবে বলেও তিনি আশা ব্যক্ত করেন। “স্বাস্থ্যসেবার প্রত্যেক শাখায় ফার্মাসিস্টদের কাজের আরো সংযুক্তি হবে”।

ফার্মাসিউটিক্যাল সাইন্সেস অনুষদের সম্মানিত চেয়ারম্যান ড. জি এম সায়েদুর রহমান ফার্মাসিস্টদের শুভকামনা জানিয়ে তাদের ভবিষ্যত উন্নতি সাধন নিয়ে বিশেষ পরিকল্পনার কথা ব্যক্ত করেন।

এ সি আই ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড ও গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডএর অর্থায়নে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উক্ত অনুষদের শিক্ষক, শিক্ষার্থীবৃন্দ এবং ক্লাব সদস্যদের উপস্থিতিতে মুখরিত হয়ে উঠে বিশ্বিবদ্যালয় প্রাঙ্গন। আয়োজিত ইভেন্ট এ শিক্ষার্থীবৃন্দ বরাবরই সম্মানিত শিক্ষক মহোদয় এর বিভিন্ন শিক্ষনীয়  বক্তৃতা এবং উপদেশে আলোকিত হয়েছিলেন, পাশাপাশি ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি গুলো কিভাবে উন্নয়নের পথে অগ্রসর হবে সেই বিষয়েও বিস্তার আলোচনা হয়েছিলো।

এ সময় শিক্ষার্থীরা বলেন “একজন পেশাদার ফার্মাসিস্ট এর কাজ কেবল ওষুধ প্রস্তুতির মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে না। বরং উৎপাদন থেকে শুরু করে এর ওষুধ উন্নয়ন, ওষুধের মান নিয়ন্ত্রণ , ওষুধ এর প্রতিক্রিয়া সহ আরো নানাবিধ কাজ পর্যন্ত বিস্তৃত। এছাড়া, কমিউনিটি ফার্মাসিস্ট , ক্লিনিক্যাল ফার্মাসিস্ট হিসেবেও একজন ফার্মাসিস্ট দক্ষতার সাথে সাস্থ্যসেবায় নিজের ভূমিকা পালন করে চলেছেন। একজন ফার্মাসিস্ট সাস্থ্য সেবাখাতের সর্বশেষ ধাপ ওষুধ সেবনের পূর্বে রোগীর সাথে যোগাযোগ করার জন্য পেশাদার, এবং কোভিড পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য সেবায় তারা বরাবরই অটুট ভূমিকা রেখে এসেছেন।”

বিএনএ/শাকিল, এমএফ