Bnanews24.com
Home » সরকারের লোভে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত অন্ধকারে: মির্জা ফখরুল
টপ নিউজ বিএনপি রাজনীতি সব খবর

সরকারের লোভে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত অন্ধকারে: মির্জা ফখরুল

আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে সাম্প্রদায়িক হামলা হয়: ফখরুল

বিএনএ ডেস্ক: শুধু লোভের কারণে সরকার বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতকে অন্ধকারের পথে নিয়ে গিয়েছে। এমন অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মঙ্গলবার (২৬ জুলাই) বিকেলে গুলশানে দলীয় চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এমন মন্তব্য করেন বিএনপি মহাসচিব। বলেন, উৎপাদন না করেও রেন্টাল বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলোর জন্য সরকারকে অর্থ গুনতে হচ্ছে। বিশেষ আইনে স্থাপিত রেন্টাল ও কুইক রেন্টালের ১৯টি বিদ্যুৎকেন্দ্র ২-৩ বছর পর বন্ধ হওয়ার কথা থাকলেও তা এখনো চলমান। বেশ কিছু রেন্টাল বিদ্যুৎকেন্দ্র উৎপাদন না করেও ক্যাপাসিটি চার্জ বাবদ বিপুল অর্থ নিয়ে যাচ্ছে। বিদ্যুৎ ছাড়াই ৩ বছর সরকারকে ৫৪ হাজার কোটি টাকা গচ্চা দিতে হচ্ছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘সরকারের নিজস্ব ব্যবসায়ীদের পকেটে গেছে ৪২ হাজার কোটি টাকা। গত এক যুগে ক্যাপাসিটি চার্জ বাবদ গচ্চা প্রায় ৮ দশমিক ৫৪ বিলিয়ন ডলার। বিদ্যুতের চাহিদা সঠিকভাবে নির্ধারণ না করেই চাহিদার অনেক বেশি পাওয়ার প্ল্যান্টের সঙ্গে চুক্তি করে দুর্নীতিবাজ ব্যবসায়ীদের লুট করার সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে।

ফখরুল বলেন, বিদ্যুৎ খাতে রাষ্ট্রীয় দেনা ২ লাখ ১৮ হাজার কোটি টাকা। বিদেশি ঋণের পরিমাণ ১ লাখ ৯৭ হাজার ৬৭৭ কোটি টাকা। ২০২৪ সাল থেকে আগামী ৩০ বছরে সুদসহ এই ঋণ পরিশোধ করতে হবে যা জনগণের পকেট কেটে করা হবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, এসব বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের ক্ষেত্রে ইনডেমনিটি আইন তৈরি করে নজিরবিহীন দুর্নীতি ও লুটপাট হয়েছে। যার ফলে দেশের অর্থনীতির ওপর চরম বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। বিদ্যুতের এই পরিস্থিতির জন্য ব্যর্থতার দায় নিয়ে সরকারকে পদত্যাগ করার আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল।

লোডশেডিং ও জ্বালানি খাতে অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে সারা দেশে ৩ দিনের বিক্ষোভ কর্মসূচির ঘোষণা দেন বিএনপি মহাসচিব। জানান, আগামী ২৯ ও ৩০ জুলাই ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ ও অন্যান্য মহানগর এবং জেলা পর্যায়ে ৩১ জুলাই প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ সমাবেশ করা হবে। এছাড়া ২৯ জুলাই ঢাকা মহানগর উত্তর এবং ৩০ জুলাই মহানগর দক্ষিণ বিক্ষোভ করা হবে।

বিএনএ/ এ আর