Bnanews24.com
Home » সোহানা সাবা কি আবার বিয়ে করছেন?
বিনোদন সব খবর

সোহানা সাবা কি আবার বিয়ে করছেন?

সোহানা সাবা বিয়ে

বিনোদন ডেস্ক: ২০০৬ সালে চিত্রনায়িকা কবরী পরিচালিত ‘আয়না’ সিনেমার মাধ্যমে রুপালি পর্দায় পা রাখেন সোহানা সাবা। ২০০৮ সালে মুরাদ পারভেজ পরিচালিত ‘চন্দ্রগ্রহণ’ সিনেমায় অভিনয় করেন তিনি। দুই পর্দার দর্শকপ্রিয় এই অভিনেত্রী কলকাতার বাংলার সিনেমায় কাজ করেও প্রশংসা পেয়েছেন।

চন্দ্রগ্রহণ’ সিনেমায় অভিনয় করতে গিয়ে পরিচালক মুরাদ পারভেজের প্রেমে পড়েন সোহানা সাবা। পরবর্তীতে বিয়ে করে সংসারী হন তারা। ২০১৪ সালের ১৮ অক্টোবরে তাদের ঘর আলো করে জন্ম নেয় পুত্র স্বরবর্ণ। পরের বছরের সেপ্টেম্বরে আলাদা হয়ে যান এই তারকা দম্পতি।

এ সংসারের ইতি টেনে পুত্রকে নিয়ে সিঙ্গেল মাদার হিসেবে এতদিন জীবন যাপন করছেন সোহানা সাবা।

দীর্ঘ সময় পর সোহানা সাবা বিয়ে  নিয়ে দীর্ঘ একটি পোস্ট দিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। লেখার শুরুতে সাবা বলেন—‘অনেকেই ইনিয়ে-বিনিয়ে প্রকাশ্যে আড়ালে জানতে চাইছেন—আমি কবে বিয়ে করবো?

কারো মৃত্যু খবর শুনলে যেমন নিজের বা কাছের মানুষের মৃত্যুচিন্তা মাথায় ভর করে, তেমনি কারো বিয়ের খবর পেলে বিবাহ-সম্ভাব্য ব্যক্তির দিকে সবার নজর পড়ে যে তার নাম্বার কবে আসবে?’

সোহানা সাবা
চিত্রনায়িক সোহানা সাবা

সোহানা সাবা বলেন, বিয়ে করে আর ভুল করতে চান না আর ‘ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে কথা বলতে পছন্দ করি না। তবু বলছি, বিয়ে যদি কখনো করিও আর ভুল করবো না সেটারই ট্রাই করব। উঠতি বয়সের এক সিদ্ধান্তে যা কিছু অগোছালো হয়েছে, তা সামলে কতটা উঠতে পেরেছি তা জানি না। তবে আর নিজেকে এলোমেলো দেখতে চাই না। কোনোরকম পিআর প্রেসার কাজ করবে না আমার সাথে। জীবনটা খুব সুন্দর। জীবনের প্রতিটি মুহুর্ত উপভোগ করতে চাই।’

একবার স্বাধীনতা হারিয়েছি সেই স্বাধীনতা ফিরে পাওয়ার মাঝে অনেক আনন্দ রয়েছে। আর সেই আনন্দের উপলদ্ধি  খুব ভালোভাবে করেছি। এই স্বাধীনতাকে ভুল না বোঝার আহ্বান জানিয়ে এই অভিনেত্রী বলেন, ‘একেবারে ভুল বুঝবেন না যে, এটা খারাপ কোনো স্বাধীনতা। এটা নিজের জীবন, নিজের আয়-ব্যয়, নিজের চিন্তা-ভাবনা, নিজের মতবাদ, নিজের বিশ্বাস, নিজের বেড়ে ওঠা জীবন, নিজের সম্মানবোধ, নিজের সততার, নিজের শিক্ষার, নিজের নিঃশ্বাস নেবার স্বাধীনতা। আমি স্বাধীনতাগুলো আর হারাতে চাই না। আর যদি বিয়ে করি, তবে এ টুকু নিশ্চিত হবো যে, আমার এই স্বাধীনতাকে সম্মান করা হবে।’

বিএনএ/ রিপন রহমান খাঁন,জিএন