ম্যারাডোনাকে হারানোর দুই বছর

স্পোর্টস ডেস্ক: পুরো বিশ্ব সেদিন কেঁপে উঠেছিল একসঙ্গে। যেই শুনেছে, এক মুহূর্ত থমকে গিয়েছিল সবাই। হুট করেই পরপারে পাড়ি দিয়েছিলেন আর্জেন্টাইন ফুটবল কিংবদন্তি ডিয়েগো ম্যারাডোনা। যাকে বলা হয় ‘ফুটবলের ঈশ্বর’।

আরো পড়ুন

প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব পদে পরিবর্তন

যুবদল সভাপতি টুকু কারাগারে

২০২০ সালের ২৫ নভেম্বর ৬০ বছর বয়সে না ফেরার দেশে পাড়ি দেন ম্যারাডোনা। শুক্রবার যার দুই বছর পূর্ণ হলো।

মৃত্যুর কিছু দিন আগে মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার হয়েছিল ম্যারাডোনার। সেখান থেকে সেরেও উঠছিলেন। কিন্তু কিছুদিন পরই হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যু হয় তার।

ম্যারাডোনাকে অমর বললেও ২৫ নভেম্বর দিনটা এলেই অলিখিত শোক দিবস পালন হয় আর্জেন্টিনায়। কান্নায় ভেঙে পড়েন তার কোটি কোটি ভক্তরা। সর্বত্রই এক দৃশ্য দেখা যায়।

ম্যারাডোনা আর নেই, বিশ্বাস করেন না আর্জেন্টাইনরা। তারা মনে করেন, ফুটবলের রাজপুত্র নিশ্চয়ই বিশ্বকাপে লিওনেল মেসিদের সাফল্য কামনায় প্রার্থনা করছেন। মরুদেশে ৩৬ বছর পরে আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপ জিতলে জনসমক্ষে আসবেন!

১৯৮৬ সালে আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপ এনে দেয়া ম্যারাডোনাকে বলা হয় সর্বকালের অন্যতম সর্বশ্রেষ্ঠ ফুটবলার। বোকা জুনিয়রস, নাপোলি আর বার্সেলোনার মত দলের হয়ে খেলে বহু ইতিহাস গড়েছেন তিনি। অসাধারণ ক্রীড়া নৈপুণ্যে হয়ে উঠেছেন গোটা বিশ্বের আইকন।

আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আর্জেন্টিনার হয়ে তিনি ৯১ ম্যাচে করেছেন ৩৪ গোল। তিনি চারটি ফিফা বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেন। যার মধ্যে ছিল ১৯৮৬ বিশ্বকাপ, যেখানে তিনি আর্জেন্টিনার অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেছেন এবং দলকে বিশ্বকাপ জয়ে নেতৃত্ব দেন।

বিএনএনিউজ২৪/ এমএইচ