Bnanews24.com
রাজনীতি

‘নারীর ক্ষমতায়নে শেখ হাসিনার নানা উদ্যোগের সুফল ভোগ করছে বাংলাদেশ’

বিএনএ ডেস্ক:নারীর সমতা অর্জন, উন্নয়ন ও ক্ষমতায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নানাবিধ উদ্যোগের সুফল ভোগ করছে বাংলাদেশ বলে মন্তব্য কলেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসের সহধর্মিনী আফরিন তাপস।

সোমবার (২২ মার্চ) ডিএসসিসির প্রধান কার্যালয় নগর ভবনে ‘আন্তর্জাতিক নারী দিবস ২০২১’ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা ও সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

আফরিন তাপস বলেন, ‘নারীর সমতা অর্জন, উন্নয়ন ও ক্ষমতায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগ ও কার্যক্রমের ফলে আজ দেশের নারীরা সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি, সরকারের সচিব, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, সেনাবাহিনীর মেজর জেনারেল, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতির মতো গুরুদায়িত্ব পালন করছেন। মাঠ প্রশাসনসহ দেশের বিভিন্ন খাতে নারীরা অত্যন্ত দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করছেন। বিদেশের মাটিতে শান্তিরক্ষী বাহিনীতে বাংলাদেশ সেনা-বিমান-নৌ বাহিনী ও পুলিশ বাহিনীর নারী সদস্যরা অত্যন্ত দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করছে। যা বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের সুনাম ও মর্যাদা বৃদ্ধি করে চলেছে। সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ পদে আছে নারীরা। তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ই-কমার্স ও অনলাইন ব্যবসায় বাংলাদেশের নারীরা বিপ্লব সৃষ্টি করেছেন। তাই, নারীর এগিয়ে চলার মাধ্যমে দেশের সামগ্রিক উন্নয়নের সুফল ভোগ করছে বাংলাদেশ।’

নারীর উন্নয়ন ও ক্ষমতায়ন— ওতোপ্রোতভাবে জড়িত আলাদা দুটি স্বতন্ত্র ধারা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘শুধু উন্নয়নের মাধ্যমে যেমন ক্ষমতায়ন হয় না, তেমনি শুধু ক্ষমতায়নের মাধ্যমেও কোন জনগোষ্ঠীর উন্নয়ন সম্ভব নয়। তাই নারীকে সমাজের মূলধারায় নিয়ে আসার মাধ্যমে তাদের ক্ষমতায়ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবার আগে নারী শিক্ষায় গুরুত্বারোপ করেছেন।’

জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নে শিক্ষা ব্যতীত বিকল্প নেই উল্লেখ করে আফরিন তাপস বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্নাতক শ্রেণি পর্যন্ত মেয়েদের বিনা বেতনে পড়ার সুযোগ করে দিয়েছেন। এক কোটি চল্লিশ লাখ ছাত্রীদের উপবৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে। এর ফলে বর্তমানে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরে ছেলে শিক্ষার্থীর চেয়ে মেয়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে একুশে পদকপ্রাপ্ত রবীন্দ্র সঙ্গীত শিল্পী পাপিয়া সারোয়ার বলেন, ‘নারীকে একলা চলার সাহস সঞ্চয় করতে হবে। না হলে নারী উন্নয়ন ও নারীর ক্ষমতায়ন বাঁধাগ্রস্ত হবে।’

রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী পাপিয়া সারোয়ার এ সময় মুক্তিযুদ্ধকালীন বিভিন্ন ঘটনাপ্রবাহ উল্লেখ করেন এবং মুক্তিযুদ্ধে পারিবারিকভাবে তাদের সম্পৃক্ততা তুলে ধরেন।

করোনাকালিন শত সমস্যার মাঝেও যে সব কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ কাউন্সিলরদের সহায়তায় সক্রিয়ভাবে বিভিন্ন কার্যক্রমে অংশ নিয়েছেন অনুষ্ঠানে তাদের মধ্য থেকে ২২ জন ‘নির্ভয়া’ নারীকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে ডিএসসিসি’র বিভিন্ন ওয়ার্ডের সাধারণ আসন ও সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলরবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।