রফতানির আড়ালে মানি লন্ডারিং চেষ্টা

বিএনএ,চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম বন্দর থেকে দুটি কনটেইনারে ২২ টন পণ্য রফতানি হওয়ার কথা ছিল। তবে কটেইনার দুটি খুলে পাওয়া গেছে আধা টন পণ্য। এ ঘটনায় কনটেইনার দুইটি আটক করেছে চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউস।

আরো পড়ুন

বিমানের নতুন এমডি শফিউল আজিম

কাতার ফুটবল বিশ্বকাপে সেমিতে যাওয়ার লড়াই

বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) নগরীর চট্টগ্রামের পতেঙ্গার বেসরকারি ইস্টার্ন লজিস্টিকস ডিপোতে এ ঘটনা ঘটে।

এসময় কাস্টম হাউসের অডিট, ইনভেস্টিগেশন ও রিসার্চ টিম (এআইআর) এবং জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা, সংশ্লিষ্ট ডিপো ও সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধির উপস্থিতিতে কনটেইনারের সিল কেটে পণ্য পরীক্ষা করেন এআইআর শাখার কর্মকর্তারা। এসময় কনটেইনারের সামনে সুসজ্জিত মুড়ি, ড্রাই কেক টোস্টের কার্টন সরিয়ে দেখা যায় পেছনে ফাঁকা এবং প্রতি কনটেইনারে প্রায় ১১ টন পণ্য থাকার কথা থাকলেও পাওয়া যায় আধা টন পণ্য।

কাস্টমস হাউস সূত্রে জানা যায়, ঢাকার মতিঝিলের বাংলা ফুড বেভারেজ নামের প্রতিষ্ঠানের নামে এই চালানটি মালয়েশিয়ায় রপ্তানি হচ্ছিল। এক লাখ তিন হাজার ডলার মূল্যের পণ্যচালান রপ্তানির লক্ষ্যে রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান মনোনীত সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট আর ইসলাম এজেন্সি চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউজে গত ১৮ ও ২১ ডিসেম্বর বিল অফ এক্সপোর্ট জমা দেয়।

চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের কমিশনারের গোপন সংবাদের মাধ্যমে জানতে পারে উত্তর পতেঙ্গার ইস্টার্ন লজিস্টিকস ডিপোতে দুইটি পণ্যচালানের বিপরীতে দুইটি ২০ ফুট কনটেইনারে পণ্য বোঝাই করা হয় এবং চট্টগ্রাম বন্দর থেকে জাহাজে তোলার ডাক আসার অপেক্ষায় ডিপোতে কনটেইনার দুইটি রাখা হয়। প্রতি কনটেইনারে প্রায় ১১ টন পণ্য থাকার কথা থাকলেও বাস্তবে তা নেই মর্মে।

কাস্টমস হাউসের সহকারী কমিশনার রেজাউল করিম জানান, ডিপো কর্তৃপক্ষ ঘোষণা অনুযায়ী পণ্য বুঝে নিলেও কম পণ্য থাকার বিষয়ে কোনো সদুত্তর দিতে পারেনি। এক্ষেত্রে হুন্ডির মাধ্যমে বিদেশে কালো টাকা পাচার করে রফতানির নামে টাকা সাদা করার অপচেষ্টা করা হয়েছে মর্মে সন্দেহ করা হচ্ছে। তা ছাড়া রফতানি বাণিজ্যকে উৎসাহিত করতে খাদ্যসামগ্রী রফতানির ক্ষেত্রে নগদ প্রণোদনা দেয় বাংলাদেশ সরকার। মানি লন্ডারিং, রফতানির আড়ালে কালো টাকা সাদা করা, অবৈধভাবে সরকারি প্রণোদনা গ্রহণের অপচেষ্টাসহ দেশের গুরুত্বপূর্ণ রফতানি খাতকে প্রশ্নবিদ্ধ করার অপচেষ্টা করেছে এ চোরাচালান চক্র।

তিনি জানান, এ ঘটনায় কাস্টমস আইন অনুযায়ী মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং দ্রুত অনুসন্ধান শুরু করবে কাস্টম হাউসের এন্টি মানিলন্ডারিং ইউনিট।

বিএনএনিউজ/মনির