Bnanews24.com
রাজধানী সব খবর

কোরবানে গোশত কেটে আহত শতাধিক ঢামেকে ভর্তি

ঢামেকে করিডোর থেকে নারীর মরদেহ উদ্ধার

বিএনএ, ঢাকা : কোরবানি গোশত কাটার সময়, গরুর লাথি খেয়ে ও ঈদের দিন বেপরোয়াভাবে মটরসাইকেল চালানোর সময় দুর্ঘটনায় গত দুই দিনে ৩৭৬ জন আহত হয়ে ঢামেক হাসপাতাল এবং জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (নিটোর) অথবা পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে। আহতদের মধ্যে ১২৫ জনের অবস্থা গুরুতর। তাদের হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে। অন্যরা হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাসায় চলে গেছে।

বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) ঢামেক হাসপাতাল ও পঙ্গু হাসপাতালে সরেজমিন ঘুরে এসব তথ্য জানান গেছে।
ঈদে হাসপাতালে হঠাৎ এসব রোগীর সংখ্যা বেড়ে যায়। ঢামেক হাসপাতালের জরুরী বিভাগের রেজিষ্টারের মাধ্যমে জানা যায় দুই দিনে ১১৬ জন শখবশত গরু কাটতে গিয়ে বিভিন্ন ভাবে আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসেন। এদের মধ্যে অনেকেই গুরতর অবস্থায় ভর্তি আছেন। অন্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা পর বাসায় চলে গেছেন। যেমন, কামরাঙ্গীরচর আলীরঘাট এলাকায় থেকে হাসানুজ্জামান (৪৫) নামে এক ব্যক্তি গরু কাটতে গিয়ে তার বামহাতে ছুরির আঘাত লেগে হাতের রগকেটে যায়। তিনি ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। পূর্ব জুরাইন এলাকায় থেকে আহতাবস্থায় শামীম আহমেদ (৩৫) নামে একজন ঢামেক হাসপাতালে আসেন। তিনি জানান, ঈদেদিন কোরবানি দেওয়ার জন্য গরুটিকে দড়ি দিয়ে বাধার সময় গরুর লাথির আঘাতে আহত হন। এই রকম রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে আহতাবস্থায় হাসপাতালে এসে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

ঢামেক হাসপাতালের জরুরী বিভাগের আবাসিক চিকিৎসক ডা. এস এম আলাউদ্দিন এ বলেন, এই হাসপাতালে দুই দিনে প্রায় ১১৬ জন আহত হয়ে চিকিৎসা নিতে আসেন। এদের মধ্যে বেশীর ভাগ চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছেন। আবার অনেকেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তিনি আরও বলেন, প্রতি বছর ঈদের সময় এই ধরণের দুর্ঘটনাগুলো ঘটে।

এদিকে পঙ্গু হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসা নিয়েছেন পা ভেঙে আশুলিয়া থেকে আসা রফিকুল ইসলাম (৩৩)। ঈদে বন্ধুদের সঙ্গে বাইক নিয়ে বের হয়ে অন্য বাইককে ওভারটেক করতে গিয়ে দুর্ঘটনার কবলে পড়েন তিনি। রফিকুলকে রগের পরীক্ষা করার জন্য জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে রিপোর্টে দেখা গেছে পায়ের রগ কেটে গেছে।

রফিকুলের বাবা আমিনুল বলেন, ছেলেকে বলেছিলাম ঈদের দিন বাইক নিয়ে বের হওয়ার দরকার নেই। বাইক নিয়ে বের হওয়ার ৩০ মিনিটের মধ্যেই বাড়িতে দুর্ঘটনার খবর আসে।
গাজীপুর থেকে মিলন হোসেন (২৫) বাইক চালানোর সময় ও পিকআপ ভ্যানের সঙ্গে ধাক্কায় দুর্ঘটনা ঘটে। তার দুই পায়ের ওপর দিয়ে পিকআপ ভ্যানের চাকা চলে যায়।

পল্লবী থেকে পঙ্গু হাসপাতালে এসছেন কবির হোসেন (৩৪)। কোরবানির পশু জবাই করতে গিয়ে হাতে ছুরি চালিয়ে দিয়েছে হুজুর। এছাড়া মাংস কাটতে গিয়ে হাতের রগ কাটা নিয়ে মিরপুর থেকে এসেছেন মোহাম্মদ শরিফ।

রোগী ভর্তির কাজে কর্তব্যরত নার্স শারমীন আক্তার জানান, ঈদে দিন থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ২৬০ জন রোগী হাসপাতালে এসেছেন। অধিকাংশ বাইক দুর্ঘটনা ও কোরবানি দেওয়ার সময় গরুর লাথিতে হাত-পা ভেঙে আহত হয়ে হাসপাতালে এসেছেন। এদের মধ্যে ৯৮ জনের অবস্থা গুরুতর। অপারেশনের পর তাদের হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে। আর অন্যরা হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাসায় চলে গেছেন।
পঙ্গু হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক ডা.এম জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আহত রোগীদের সুচিকিৎসা দেওয়ার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

বিএনএনিউজ/আজিজুল/এইচ.এম।