Bnanews24.com
Home » মেয়র পদও হারাচ্ছেন জাহাঙ্গীর?
টপ নিউজ সব খবর

মেয়র পদও হারাচ্ছেন জাহাঙ্গীর?

বরখাস্ত মেয়র জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা

বিএনএ, ঢাকা : র সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। তার প্রাথমিক সদস্যপদও বাতিল করা হয়েছে। পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশও দেয়া হয়েছে। শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) আওয়ামী লীগের ওয়ার্কিং কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।

এ বহিষ্কার সিদ্ধান্ত ও আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়ায় প্রশ্ন উঠেছে মেয়র পদে থাকছেন জাহাঙ্গীর আলমকে? নাকি তাকে মেয়র পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হবে?

ঘটনার সূত্রপাত এ বছরের সেপ্টম্বরে। বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে ‘কটূক্তি’র একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এ নিয়ে তীব্র সমালোচনা শুরু হয়। ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ১১ মিনিট ২৩ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা যায়, বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ ছাড়াও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ খান, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, হেফাজতের প্রয়াত নেতা জুনায়েদ বাবুনগরীর সঙ্গে তার সখ্য ও রাষ্ট্রীয় দুটি সংস্থা নিয়ে নানা আপত্তিকর মন্তব্য করেন মেয়র জাহাঙ্গীর।

যদিও জাহাঙ্গীর আলম তার বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগ অস্বীকার করেন। বলেন, রাজনৈতিক একটি প্রতিপক্ষ অতি উৎসাহী হয়ে তার বক্তব্যের ভিডিও এডিটিংয়ের মাধ্যমে বিকৃতভাবে উপস্থাপন করে ভাইরাল করেছে। তিনি গভীর ষড়যন্ত্রের শিকার।

এ ঘটনার পর ৩ অক্টোবর জাহাঙ্গীর আলমকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয় আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে। সেখানে ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে তাঁকে জবাব দিতে বলা হয়। জাহাঙ্গীর নোটিশের জবাবও দিয়েছেন।
আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডের এক সদস্য বলেন, জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ জমা হয়েছে। সেগুলো নিয়ে দলের সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরামেও আলোচনা হয়েছে। এ ছাড়া গত বছরের মাঝামাঝি গাজীপুর সিটি করপোরেশনের একজন প্রকৌশলী খুন হন। সেটি নিয়েও নানা আলোচনা রয়েছে। তিনি বলেন, ‘সে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে যে ঔদ্ধত্য দেখিয়েছে, সেটা ক্ষমার অযোগ্য।

শুক্রবার ওয়ার্কিং কমিটির সভায় আ’লীগ থেকে জাহাঙ্গীর আলমকে বহিষ্কার করা হলো।

মেয়রের দায়িত্ব থেকে অপসারণ?
আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, জাহাঙ্গীর আলম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে সংবিধানবিরোধী যে বক্তব্য দিয়েছেন, তাতে তাঁর শপথ ভঙ্গ হবে না। কারণ, মেয়র পদটি সাংবিধানিক নয়। তিনি শপথ নিয়েছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অধীন। জাহাঙ্গীরকে পদ থেকে অপসারণ করতে হলে স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) আইনের মাধ্যমেই করতে হবে।
সূত্র জানিয়েছে, তার দূর্নীতি অনিয়মের সংক্রান্ত বিষয়ে অনুসন্ধান করছে মন্ত্রণালয়। বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত আসার পর তার অনুসন্ধান আরও বেশি গতি পাবে।

প্রসঙ্গত, জাহাঙ্গীর আলম ২০০৯ সালের ২২ জানুয়ারি তৎকালীন গাজীপুর সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এরপর ২০১৩ সালে গাজীপুর সিটি করপোরেশন গঠন হলে নাগরিক কমিটির ব্যানারে আনারস প্রতীকে মেয়র প্রার্থী হন জাহাঙ্গীর। নির্বাচনের আগে কেন্দ্রীয় নির্দেশনায় দলীয় প্রার্থীকে সমর্থন দিয়ে নির্বাচন থেকে সরে যান তিনি। এরপর ২০১৬ সালে দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা মহানগরের প্রথম সাধারণ সম্পাদক মনোনিত করেন তাকে। পরবর্তীতে ১৮ সালের নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে মেয়র নির্বাচিত হন জাহাঙ্গীর।

বিএনএনিউজ/এইচ.এম।