Bnanews24.com
Home » আইডিয়াল স্কুলের প্রকৌশলীর সম্পদের তথ্য চেয়ে দুদকের চিঠি
টপ নিউজ রাজধানী সব খবর

আইডিয়াল স্কুলের প্রকৌশলীর সম্পদের তথ্য চেয়ে দুদকের চিঠি

দুদকের মামলা

বিএনএ, ঢাকা: রাজধানীর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের উপ-সহকারী প্রকৌশলী আতিকুর রহমান খানকে সম্পদের হিসেব চেয়ে নোটিশ দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। রোববার (১৪ আগস্ট) দুদক পরিচালক মুহাম্মদ মনিরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক চিঠির মাধ্যমে এ নির্দেশ দেওয়া হয়।

নোটিশ গ্রহণের ৭ কার্যদিবসের মধ্যে তার সম্পদের হিসেব কমিশনের কাছে দাখিল করার কথা চিঠিতে উল্লেখ করা হয়। আতিকের অভিযোগের বিষয় দুদক সচিব মাহাবুব হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার কোন নথিপত্র আমার দপ্তরে জমা হয়নি। তবে খুব শিগগিরই কাগজপত্র হাতে আসতে পারে। নথিপত্র হাতে পেলে গণমাধ্যমকে আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হবে।

এদিকে গত ( ৭ আগস্ট) কমিশন এক প্রজ্ঞাপন জারি করেছেন। দুদকের অভ্যন্তরীণ নোটিশে বলা হয়েছে ,যে কোন অভিযোগ অনুসন্ধানাধিন অবস্থায় কমিশনের মূখপাত্র ছাড়া কেউ গণমাধ্যমকে তথ্য প্রদান করতে পারবে না। যদি কেউ তথ্য দিয়ে থাকে প্রমাণ পেলে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

রাজধানীর বিভিন্ন ব্যাংকে ৯৭টি ব্যাংক একাউন্ট রয়েছে আতিকের। ব্যাংকগুলো হলো-আল আরাফাহ ইসলামি ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক, ডাচ বাংলা ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামি ব্যাংক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক, সাউথইস্ট ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক ও ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড। এসব ব্যাংকে ২০০৭ সাল থেকে চলতি বছরের ২৮ মার্চ পর্যন্ত ১১০ কোটি ৬৯ লাখ ৯২ হাজার ৩৯২ টাকা লেনদেন হয়েছে।

আইডিয়াল স্কুলে ভর্তি বাণিজ্যের অর্থ দিয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। রামপুরার বনশ্রী মসজিদ মার্কেটে বিশ্বাস লাইব্রেরি রয়েছে, আফতাবনগরে বি-ব্লকে বিশ্বাস বাজার নামে একটি প্রতিষ্ঠান, একই এলাকার ৫ নম্বর সড়কের ১২ নম্বর প্লটে ভিশন-৭১ নামে একটি রিয়েল এস্টেট প্রতিষ্ঠান, আফতাবনগরে চারটি বাড়ি এবং বনশ্রীতে আরেকটি বাড়ির সন্ধান পাওয়া গেছে। এছাড়া বনশ্রী এলাকায় খান ফিলিং অ্যান্ড এলপিজি, আফতাবনগরে ন্যাশনাল ফ্রায়েড কিচেন নামে একটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে।  এরমধ্যে আতিকুর রহমানের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান, স্ত্রী নাহিদা আক্তার নীপা, বড় ভাই আবদুস সালাম খান, ফজলুর রহমান খান ও শ্বশুর নুরুল ইসলামের নামেও লেনদেনও রয়েছে।

দুদকে আসা অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, আতিকুর রহমান খানের মালিকানাধীন ন্যাশনাল ফ্রায়েড চিকেনের নামে সাউথইস্ট ব্যাংকে ২০১৫ সালে একটি হিসাব খোলা হয়। ওই হিসাবে প্রায় সোয়া ২ কোটি টাকা লেনদেন হয়েছে। এ ছাড়া তার মালিকানাধীন এইচ কে খান এন্টারপ্রাইজের নামে প্রাইম ব্যাংকের একটি হিসেবে ৮ কোটি টাকার লেনদেনের তথ্য পাওয়া যায়। খোঁজ নিয়ে ওই প্রতিষ্ঠানের ঠিকানায় বনশ্রীর মসজিদ মার্কেটের বিশ্বাস লাইব্রেরি তথ্য মিলেছে। শত কোটি টাকার বেশি সম্পদের মালিক হলেও মাত্র ৩৫ লাখ টাকা আয়কর রির্টান দাখিল করেছে। এছাড়া গণমাধ্যমে উঠে আসা তথ্যের বাইরে এই প্রকৌশলীর কালিগঞ্জ থানা এলাকায় রিসোর্ট তৈরির জন্য প্রায় ১’শ একর জমি ক্রয় করেছে। তার শশুর বাড়ি ময়মনসিংহে আতিকের নামে ৫ একর জমি আছে। দেশের বাইরে আমেরিকায় আতিকের নামে ফ্লাট আছে বলে জানা গেছে।

মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) রাতে সাড়ে ৯ টায় মুটোফোনে দুদকের দেয়া কোন নোটিশ পেয়েছেন কি না জানতে চাইলে আতিক বলেন, আমি কোন নোটিশ বা চিঠি পাইনি। আমার বিরুদ্ধে যা কিছু হচ্ছে তা কোনোটাই ঠিক নয়।

বিএনএ/আজিজুল, এমএফ