Bnanews24.com
Home » রাঙামাটিতে জলোৎসবের মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে বৈসাবি উৎসব
টপ নিউজ পার্বত্য চট্টগ্রাম সব খবর

রাঙামাটিতে জলোৎসবের মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে বৈসাবি উৎসব

রাঙামাটিতে জলোৎসবের মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে বৈসাবি উৎসব

বিএনএ, রাঙামাটি: রাঙ্গামাটির কাউখালী উপজেলায় মারমা সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী সাংগ্রাই উৎসবের মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে বৈসাবি উৎসব। শনিবার (১৬ এপ্রিল) ফুলবিজুর মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হওয়া এই উৎসব শেষ হচ্ছে। এর আগে একই দিন সকালে উপজেলার বেতবুনিয়ায় শুরু হয় সাংগ্রাই জলোৎসব। এ সময় পুরনো বছরের সব দুঃখ-কষ্ট, গ্লানি মুছে ফেলতে মারমা সম্প্রদায়ের পাশাপাশি বাঙালিরা যোগ দেন জল উৎসবে।

জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে বিপুলসংখ্যক মারমা তরুণ-তরুণী অংশ নেয় এই আয়োজনে। সাথে ছিল নানা জনগোষ্ঠীর উৎসুক মানুষও।
মারমা সংস্কৃতিক সংস্থা (মাসস) এর উদ্যোগে প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও পালিত হওয়া এ আয়োজনটি করোনার কারণে বন্ধ ছিল শেষ দুই বছর। ফলে দুই বছরের বেদনা-বিষাদ ভুলে এবার অনেক বেশি আনন্দে মেতে উঠেছে পার্বত্য জনপদ। বর্ষবরণ ও বিদায়ের মহান এ আয়োজনটিকে পার্বত্য জনপদের সবচে বড় ও জনপ্রিয় সামাজিক অনুষ্ঠান হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকা রাঙামাটির সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার এমপি বলেন, ‌‌‌‘১২ তারিখ ফুলবিজুর মধ্য দিয়ে যে আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে আজ সাংগ্রাই জলোৎসবের মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে তার। এটি এই অঞ্চলের সবচেয়ে বড় সামাজিক উৎসব। ক্ষুদ্র ও পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য সরকারের অনেক কিছু করার আছে। তারই অংশ হিসেবে সরকারি অর্থায়নে নানান কর্মসূচি বর্ণাঢ্যভাবে পালিত হচ্ছে।’

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুই প্রু চৌধুরী বলেছেন, ‘গত দুই বছর করোনার কারণে আমরা উৎসব করতে পারিনি। এই বছর কোভিড সহনশীল মাত্রায় চলে আসায় আমাদের উৎসব সাড়ম্বরে পালিত হচ্ছে। আমাদের সংস্কৃতি, আমাদের ঐতিহ্য সংরক্ষিত ও বিকশিত হোক– এটাই আমাদের প্রত্যাশা। পার্বত্য চট্টগ্রামের সৌহার্দ্যপূর্ণ রাজনীতি অব্যাহত থাকুক।’

আলোচনা সভা শেষে ঐতিহ্যবাহী মং (ঘণ্টা) বাজিয়ে ও ফিতা কেটে জল উৎসবের উদ্বোধন করেন দীপঙ্কর তালুকদার। এরপর বাঁশি বাজার সঙ্গে সঙ্গে ছোট ছোট ডিঙ্গি নৌকায় থাকা পানি একে অন্যকে ছিটিয়ে দেন তরুণ-তরুণীরা।

বিএনএ/এমএফ