Bnanews24.com
Home » সাতকানিয়ায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সেন্টু লাঞ্ছিত
অপরাধ বৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃহত্তর চট্টগ্রাম সব খবর

সাতকানিয়ায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সেন্টু লাঞ্ছিত

সাতকানিয়ায় স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী সেন্টু লাঞ্ছিত

বিএনএ, সাতকানিয়া (চট্টগ্রাম):সাতকানিয়ায় ইউনিয়ন (ইউপি) পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়নপত্রের বৈধতা নিয়ে ফেরার পথে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আবু তাহের জিন্নাহর সন্ত্রাসীরা স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল মাবুদ সেন্টুকে লাঞ্ছিত করেছে।
শনিবার(১৫ জানুয়ারী) বিকালে সাতকানিয়া উপজেলার কেরানীহাটের অদূরে একটি রেস্টুরেন্টে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন লাঞ্ছিত হওয়া  উপজেলার ৯নং পশ্চিম ঢেমশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আবদুল মাবুদ সেন্টু ।

তিনি বলেন, একই ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আবু তাহের জিন্নাহর নির্দেশে তাঁর সন্ত্রাসী বাহিনীরা আজ  শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলা নির্বাচন অফিসের ১০০ গজের মধ্যে এ হামলা চালায়।এ সময় মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে বৈধতা নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন  চেয়ারম্যান প্রার্থী আবদুল মাবুদ সেন্টু।

হামলার শিকার স্বতন্ত্র চেয়ারম্যানপ্রার্থী বলেন, মনোনয়ন পত্রের বৈধতা নিয়ে আজ শনিবার দুপুরে রিটার্নিং অফিসারের রুম থেকে বের হয়ে আমি বাড়ি যাওয়ার জন্য নির্বাচন অফিসের ১০০গজের মধ্যে আরো কয়েকজন লোকের জন্য অপেক্ষা করছিলাম। এ সময় নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু তাহের জিন্নাহ’র লালিত সন্ত্রাসী শাহরিয়ার রোমন, ইমন ও ফাহিমের নেতৃত্বে ১০/১২জন সন্ত্রাসী আমাকে বলে, তোরে চেয়ারম্যানিতে কে দাঁড়াতে বলেছে? এই বলে আমাকে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি মারতে থাকে তারা। এছাড়া প্রকাশ্যে অস্ত্র ঠেকিয়ে গুলি করার হুমকিও দেয়।

ঘটনাস্থলের কিছু দূরে থাকা থানার এএসআই জিহাদ আলীসহ কিছু লোক আমার চিৎকারে এগিয়ে আসে। এএসআই জিহাদ আলী  জিহাদ আলী সন্ত্রাসীদের কাছ থেকে আমার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি নিয়ে দিলেও সন্ত্রাসীরা আমার মানিব্যাগে থাকা ২০হাজার টাকা, ট্রেড লাইসেন্স ও আইডি কার্ড নিয়ে যায়। পরে পুলিশের সহায়তায় ঘটনাস্থল থেকে আমার সঙ্গীরা আমাকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে আমি নির্বাচন অফিসার, ইউএনও ও থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি।

এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু তাহের জিন্নাহ বলেন, আমার ব্যাপারে অভিযোগ সত্য নয়। আমি এ ব্যাপারে কিছুই জানিনা এবং ব্যক্তিগতভাবে এ রকম কর্মকান্ড আমি সাপোর্টও করিনা।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত সাতকানিয়া থানার এএসআই জিহাদ আলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পশ্চিম ঢেমশার চেয়ারম্যানপ্রার্থী আবদুল মাবুদ সেন্টুর মোবাইল ফোনটি একদল অপরিচিত যুবকরা কেড়ে নেয়। পরে তাদের থেকে নিয়ে মোবাইলটি স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল মাবুদ সেন্টুকে ফেরত দিয়েছি।

Bnanews24 অনলাইনের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন

বিএনএ/ ওজি