পাকিস্তান নাকি ইংল্যান্ড; টি-টোয়েন্টির শিরোপা যাবে কার ঘরে?

বিএনএ ডেস্ক: পাকিস্তান নাকি ইংল্যান্ড, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা যাবে কার ঘরে? দুই দলই দ্বিতীয় বারের মত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা জয়ের দ্বারপ্রান্তে। ভক্তরা বলছেন, হতে পারে ৯২-এর পুনরাবৃত্তি আবার অনেকে বলছেন নতুন ইতিহাস গড়বে ইংল্যান্ড।  

রোববার (১৩ নভেম্বর) মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে বাংলাদেশ সময় বেলা ২টায় শুরু হবে ফাইনাল ম্যাচ। আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী রোববার মেলবোর্নে ১৫ থেকে ২৫ মিলিমিটার বৃষ্টির ৯৫ শতাংশ সম্ভাবনা রয়েছে। হতে পারে বজ্রপাতসহ মুষলধারে বৃষ্টি।

১৯৯২ থেকে ২০২২, ব্যবধানটা ৩০ বছরের। পাকিস্তান দল চাইবে ২০২২ সালে এসে ভক্তদের ৩০ বছর আগের স্মৃতিতে ফেরাতে। আর ইংল্যান্ড চাইবে ৩০ বছর আগে হারের প্রতিশোধ নিয়ে ভক্তদের কষ্ট লাঘব করতে।

কাকতালীয়ভাবে ৯২ ও ২২-এর বিশ্বকাপে পাকিস্তানের ফাইনালে ওঠার গল্পটা একই রকম। দুই বিশ্বকাপেই হার দিয়ে শুরু করেছিল পাকিস্তান। সেবার ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন পাকিস্তান গ্রুপ পর্বের প্রথম দুই ম্যাচ হেরে শেষ ৩ ম্যাচ জিতে ফাইনাল নিশ্চিত করে। সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে তারা পেয়ে যায় ফাইনালের টিকিট। ফাইনালে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে পায় বিশ্বকাপের স্বাদ। এবারও একইভাবে বিশ্বকাপে উঠেছে পাকিস্তান। বিশ্বকাপের ফাইনালেও পাকিস্তানের প্রতিপক্ষ সেই ইংল্যান্ড। ফাইনাল ম্যাচটিও একই ভেন্যু মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে।

পরিসংখ্যানে দেখা যায়, এ পর্যন্ত ২৮টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড। এর মধ্যে ১৮ ম্যাচে জয় পেয়েছে ইংল্যান্ড আর ৯ ম্যাচে জয় পেয়েছে পাকিস্তান। ১ ম্যাচ পরিত্যাক্ত হয়েছে। এছাড়া সবশেষ ৫ ম্যাচের তিনটিতেও জয় পেয়েছে ইংল্যান্ড। হেড-টু-হেড জয় বিবেচনায় শিরোপা জয়ের ক্ষেত্রে পাল্লাটা বেশ ভারী ইংল্যান্ডের।

বিশ্বকাপ ট্রফি নিয়ে পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড অধিনায়কের ফটোশুট।
বিশ্বকাপ ট্রফি নিয়ে পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড অধিনায়কের ফটোশুট।

শিরোপার লড়াইয়ে পাকিস্তানের বোলিং লাইনআপ স্বভাবতই বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে ইংল্যান্ডের জন্য। শাহিন শাহ আফ্রিদি, নাসিম শাহ, মোহাম্মদ ওয়াসিমের মতো পেইসাররা কাল হয়ে দাঁড়াতে পারেন জস বাটলার, ডাওয়িড মালান, অ্যালেক্স হেইলসদের জন্য।

অপরদিকে ইংল্যান্ডের উড়তে থাকা ব্যাটাররা যেকোনো সময় ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে। দুই দলের দুই শক্তিমত্তার প্রয়োগে জমকালো এক ফাইনালের আশা করতেই পারেন ক্রিকেটভক্তরা।

ফাইনালে একাদশে পরিবর্তন আনার সম্ভাবনা নেই পাকিস্তানের। অপরদিকে মার্ক উড ও ডাওয়িড মালান ইনজুরি থেকে সেরে না ওঠায় তাদের ফাইনালে খেলার সম্ভাবনা কম। যদিও ইংলিশ দলপতি বেশ আশাবাদী এই দুই ক্রিকেটারকে ফাইনালে পাওয়া নিয়ে।

মেলবোর্নের পেইসবান্ধব বাউন্সি উইকেটে পেইসাররা বেশ সহায়তা পাবেন স্বভাবতই। পাওয়ার প্লেতেই অনেকটা ভাগ্য নির্ধারণ হয়ে যাবে এই উইকেটে ম্যাচের। টস জিতে আগে ব্যাট করে ১৬০ রান যদি লক্ষ্য দেয়া যায় তবে সেটি টপকাতে বেশ বেগ পেতে হবে রান তাড়া করতে নামা দলকে। তাই দুই দলই টসে জিতে আগে বোলিং নেয়ার পক্ষপাতী থাকবেন এই ম্যাচে।

ক্রিকেট ওয়েবসাইট ইএসপিএনক্রিকইনফো জানিয়েছে, আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী রোববার মেলবোর্নে ১৫ থেকে ২৫ মিলিমিটার বৃষ্টির ৯৫ শতাংশ সম্ভাবনা আছে। তবে ফাইনালের জন্য অবশ্যই রিজার্ভ ডে রাখা হয়েছে। রিজার্ভ ডেতেও বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার আবহাওয়া অফিস। যদি বৃষ্টির কারণে ফাইনাল ম্যাচটি মাঠে না গড়ায়, তবে যৌথভাবে চ্যাম্পিয়ন হবে ইংল্যান্ড ও পাকিস্তান।

পাকিস্তান সম্ভাব্য একাদশ: বাবর আজম (অধিনায়ক), মোহাম্মদ রিজওয়ান, মোহাম্মদ হারিস, শান মাসুদ, ইফতিখার আহমেদ, মোহাম্মদ নাওয়াজ, শাদাব খান, মোহাম্মদ ওয়াসিম, নাসিম শাহ, হারিস রউফ ও শাহিন শাহ আফ্রিদি।

ইংল্যান্ড সম্ভাব্য একাদশ: জশ বাটলার (অধিনায়ক), অ্যালেক্স হেইলস, ফিল সল্ট, বেন স্টোকস, হ্যারি ব্রুকস, লিয়াম লিভিংস্টোন, মঈন আলি, স্যাম ক্যারান, ক্রিস ওকস, ক্রিস জর্ডান ও আদিল রাশিদ।

বিএনএ/এ আর