‘অস্বাভাবিক’ স্তন যখন বিপদ

রকমারি ডেস্ক: বয়সের সঙ্গে সঙ্গে মেয়েদের স্তন বৃদ্ধি পায়। এটা স্বাভাবিক নিয়ম। বয়ঃসন্ধির সময়ে যাত্রা শুরু করা স্তনের বৃদ্ধি একটা সময়ে থেমেও যায় সেই স্বাভাবিক নিয়মেই। বৃদ্ধিজনিত যাবতীয় বিষয় হয় বয়স-যৌনতা সহ নানাবিধ কারণে। কিন্তু একদম অন্য ছবি দেখা গেল ২৭ বছরের রোমিও শরীরে। ক্রমশ বেড়েই চলেছে তার স্তন যুগল। গত তিন বছর ধরে এক বৃদ্ধির হার মাত্রা ছাড়া হয়ে গিয়েছে। মাত্র ২৭ বছর বয়সের অবিবাহিত এই নারীর বিরাট বিপদে পড়েছেন।

আরো পড়ুন

২৬ কোটি টাকায় বিক্রি হচ্ছে গ্রাম

উপহারের হাঁস দিলো কালো ডিম

জেলের জালে ২০০ কেজির পাখিমাছ

আর বড় বিষয় হচ্ছে নিয়মিত বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে এই স্তনের আকার। যার কারণে মেরুদণ্ডের উপরে চাপ এবং ব্যাথার সৃষ্টি হচ্ছে। এই নিয়ে বেজায় সমস্যায় পড়তে হয়েছে থাইল্যান্ডের বাসিন্দা কায়লা রোমিও-র।

শারীরিক এই সমস্যার কারণে অন্যান্য অনেক জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে কায়লার জীবনে। তার শরীরের উপযোগী সাইজের অন্তর্বাস কেনা নিয়েও বেশ সমস্যা হচ্ছে। এই বিরাট মাপের অন্তর্বাস সহজে পাওয়া যায় না। সেই সঙ্গে বিষয়টি বেশ খরচ সাপেক্ষ। এছাড়াও উদ্বেগের বিষয় হচ্ছে যে হারে তার স্তনের আকার বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে অদূর ভবিষ্যতে তাকে ‘পি’ সাইজের অন্তর্বাস ব্যবহার করতে হবে। সেটি কতটা সহজলভ্য তা নিয়ে বেশ সংশয় রয়েছে।

এই প্রবল প্রতিকূল পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পেতে চিকিৎসকেদের পরামর্শ নিয়েছেন কায়লা রোমিও। একাধিক হাসপাতালেও গিয়েছেন। কিন্ত কোনও সুরাহা হয়নি। সমস্যার সূত্র খুঁজতেই ব্যর্থ হয়েছে চিকিৎসকেরা। এই রোগের কারণ শনাক্ত করতে না পারায় শুরু করা যায়নি চিকিৎসা।

এই বিষয়ে যুবতী কায়লা রোমিও বলেছেন, “২৭ বছর বয়সেই আমার এই হাল। ৪০ বছর বয়স হলে কী হবে সেটা নিয়ে খুব চিন্তায় আছি।” একই সঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, “সার্জারির জন্য আমি টাকা জোগাড় করার চেষ্টা করছি। আমি অন্য সকল মেয়েদের মতো স্বাভাবিক জীবন পেতে চাই। আর এই যন্ত্রণা থেকে মুক্তি চাই।”

বিএনএ/ এমএইচ