Bnanews24.com
Home » বাংলাদেশ কখনও শ্রীলঙ্কা হবে না, হবে সিঙ্গাপুর-বিএনএ সম্পাদক
টপ নিউজ প্রবাস ভিডিও সংবাদ সব খবর স্পন্সর নিউজ

বাংলাদেশ কখনও শ্রীলঙ্কা হবে না, হবে সিঙ্গাপুর-বিএনএ সম্পাদক

বাংলাদেশ কখনও শ্রীলঙ্কা হবে না, হবে সিঙ্গাপুর-বিএনএ সম্পাদক

বিএনএ, মালদ্বীপ: বাংলাদেশের অর্থনীতি উন্নত থেকে উন্নততর হচ্ছে।জিডিপি বাড়ছে। মানুষের জীবন মান উন্নত হচ্ছে। প্রবাসী ও পোষাক খাতে দিনদিন রেমিট্যান্স বেড়ে চলেছে । সেখানে বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কা হবে না, বরং সিঙ্গাপুর হবে।

বুধবার(১১ মে) মালদ্বীপের “প্রবাসী সোশ্যাল ওয়ার্কার্স এসোসিয়েশন মালদ্বীপ” আয়োজিত এক সংবর্ধনা সভায় বাংলাদেশ নিউজ এজেন্সি (বিএনএ) সম্পাদক ও সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান মজুমদার এ অভিমত ব্যক্ত করেন।

বিএনএ সম্পাদক আরও বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চৌকস নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নত বিশ্বে সামিল হওয়া সময়ের ব্যাপার মাত্র।সারাদেশে যোগাযোগ অবকাঠামো ও কলকারখানা গড়ে তুলেছেন।বাড়ছে বিদেশী বিনিয়োগ।পদ্মা সেতু, মেট্রো রেল, বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ অপ্রয়োজনীয় বিলাসী প্রকল্প নয়। বিরোধী দল সরকারের সফলতায় ঈর্ষান্বিত হয়ে বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কা হবে মর্মে গুজব ছড়িয়ে রাজনৈতিক ফায়দা নেয়ার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে।

সংগঠনের সভাপতি জাকির হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা সভায় উপিস্থত ছিলেন, মালদ্বীপস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশনের মাননীয় হাই কমিশনার রিয়ার এডমিরাল এস.এম. আবুল কালাম আজাদ, সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন-এর মহাসচিব ও ইলেকশন মনিটরিং ফোরামের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মোহাম্মদ আবেদ আলী, সার্ক মানবাধিকার ফাউন্ডেশন মালদ্বীপের বিশেষ প্রতিনিধি ও মালদ্বীপের কর্মসংস্থান ট্রাইব্যুনালের সাবেক প্রেসিডেন্ট আমজাদ মোস্তফা, মালদ্বীপ নির্বাচন কমিশনের ভাইস-চেয়ারম্যান ইসমাইল হাবিব, কেন্দ্রীয় পরিচালক বঙ্গবন্ধু গবেষক ড. মুহম্মদ মাসুম চৌধুরী, মালদ্বীপস্থ গ্লোবাল রিচ গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সোহেল রানা (সিআইপি), মালদ্বীপস্থ ভিউ কনস্ট্রাকশনের চেয়ারম্যান দুলাল হোসাইন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো: কামরুল ইসলাম, প্রবাসী সোশ্যাল ওয়ার্কার্স এসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি রবিউল আলম, সহ-সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান ও শহিদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মাশহুদুল ইসলাম মাসুদ, অর্থ সম্পাদক মনির হোসেন, প্রচার সম্পাদক আল আমিন প্রমুখ।

বিএনএনিউজ২৪ ডটকম সম্পাদক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান মজুমদার আরও বলেন, বিদেশগামী

অদক্ষ কর্মীরা ভালো আয় করতে পারে না। বিদেশে ভাল আয় করার জন্য উপযুক্ত প্রশিক্ষণ নিয়ে যেতে হবে। তিনি  বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের চাওয়া ছিল প্রতিটি জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় নয়, টেকনিক্যাল কলেজ করতে হবে। আমাদের চাওয়ার আলোকে এখন প্রায় প্রত্যেক স্কুল ও কলেজে টেকনিক্যাল কোর্স চালু করা হচ্ছে। এছাড়াও দক্ষ শ্রমিক ও দক্ষ কর্মকর্তা তৈরির লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকার একসাথে ১০০ টি কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন করছে।

তিনি  অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে বলেন, সন্তানদের কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে হবে।বাস্তব ও কর্মমুখি কারিগরি শিক্ষা পেলে কাউকে বেকার হয়ে বসে থাকতে হবে না। আমাদের মনে রাখতে হবে, উপযুক্ত প্রশিক্ষণ ও দক্ষতা অর্জন করতে পারলে জীবনে যে কোন কাজে সফলতা আসে।বিদেশগামীদের প্রশিক্ষণের জন্য আওয়ামী লীগ সরকার বহু দেশি বিদেশি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বহুমুখি প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে।

বিএনএ/ ওজি,জিএন