Bnanews24.com
বিএনপি ভাষা সৈনিক পরিচিতি সব খবর

ভাষা সৈনিক (২১) সৈয়দ আব্দুল ওয়াহেদ

ভাষা সৈনিক সৈয়দ আবদুল ওয়াহেদ

সৈয়দ আব্দুল ওয়াহেদ ১৯০১ সালের ১ জানুয়ারি অবিভক্ত কুমিল্লার নবীনগর উপজেলার অন্তর্গত কাঠালিয়া গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯১৮ সনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া অন্নদা হাই স্কুল থেকে প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে একই বছর কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজে আই. এ ক্লাসে ভর্তি হন। তখন থেকেই রাজনীতি সচেতন সৈয়দ ওয়াহেদ তৎকালীন অসহযোগ আন্দোলনে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন এবং শিক্ষী জীবনের পুরো এক বছর সময় বিনষ্ট করেন। ফলে ১৯২২ সালে আই. এ এবং ১৯২৩ সালে ডিসটিংসন বি. এ পাশ করেন। অতঃপর আইন শাস্ত্র অধ্যয়নের জন্য তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। ১৯২৭-২৮ সালে তিনি সলিমুল্লাহ মুসলিম হল ছাত্র ইউনিয়েনের সহ-সভাপতি হওয়ার গৌরব অর্জন করেন। ছাত্রজীবনে তিনি মাওলানা মোহাম্মদ আলী ও শওকত আলীর নেতৃত্বে কৃষক প্রজা পার্টির সাথে জড়িত হন। পরবর্তীতে কমরেড মোজাফফর এর কমিউনিস্ট পার্টির কর্মকাণ্ডে জড়িত হন। ১৯৮৬ সনে কৃষক প্রজা পার্টি থেকে তিনি এমএলএ নির্বাচনে প্রার্থী হন। ১৯৪৮ সনে অলি আহাদের সাথে পূর্ব পাকিস্তান যুবলীগে যোগ দেন।

৫২-এর ভাষা-আন্দোলনে তিনি সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন। এসময় তাঁর বাসায় বিভিন্ন গোপন পরামর্শমূলক সভা হত। তিনি আন্দোলনকারী ছাত্রদের অভিভাবকের ভূমিকা পালন করতেন। ফলশ্রুতিতে ১৯৫৪ সনে ইস্কান্দর মির্জা ক্ষমতা গ্রহণের পর ৯২ (ক) ধারা জারির পর তিনি কারাবরণ করেন। একই কারণে তাঁর কনিষ্ঠ ছেলে সৈয়দ আমিরুল ইসলামও কারাবরণ করেন।

১৯৬০ সনে ওয়াহেদ কুমিল্লা বারের প্রথম মুসলমান সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৭২ সনে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সাথে যুক্ত হন। ১৯৮২ সনের ১০ মে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

সূত্র: যারা অমর ভাষা সংগ্রামে, লেখক: এমআর মাহবুব

সম্পাদনায়: মনির ফয়সাল

পড়ুন আগের পর্ব: ভাষা সৈনিক (২০) আবদুল গফুর চৌধুরী