Bnanews24.com
Home » ইরানে আহমদ মাসুদের সাথে তালেবান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠক
আফগানিস্তান সব খবর

ইরানে আহমদ মাসুদের সাথে তালেবান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বৈঠক

আহমেদ মাসুদ, ইসমাইল খানের সাথে তালেবান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ইরানে বৈঠক

ইসলামী আমিরাত আফগানিস্তানের একটি প্রতিনিধিদল ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকির নেতৃত্বে বর্তমানে ইরানে থাকা প্রতিরোধ ফ্রন্টের নেতা হেরাত প্রদেশের আহমদ মাসুদ এবং সাবেক গভর্নর ইসমাইল খানের সাথে সাক্ষাত করেছেন।

ইসলামিক আমিরাতের কাতার-ভিত্তিক অফিসের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাঈমের পোস্ট করা একটি ভিডিওতে দেখা যায়, আফগানিস্তানের ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি সাংবাদিকদের বলেন,

“হ্যাঁ, আমরা আহমদ মাসুদ, কমান্ডার ইসমাইল খান এবং অন্যান্য আফগানদের সাথে দেখা করেছি। আমরা তাদের সকলকে আশ্বস্ত করেছি যে তারা ফিরে আসতে পারে এবং একটি উদ্বেগহীন জীবনযাপন করতে পারে,” ।

প্রতিরোধ ফ্রন্ট আনুষ্ঠানিকভাবে বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত না করলেও প্রতিরোধ ফ্রন্টের সদস্য হাফিজ মনসুর বৈঠকের কথা স্বীকার করেছেন।

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইদ খতিবজাদাকে উদ্ধৃত করে ইরানি মিডিয়া জানিয়েছে যে, তেহরান বৈঠকের আয়োজক করেছে এবং আফগান দলগুলোর মধ্যে একটি সফল আলোচনা হয়েছে।

এদিকে, সূত্র টোলোনিউজকে জানিয়েছে যে ইসমাইল খানের ভাগ্নে আবদুল কাইয়ুম সুলাইমানি, যিনি ইরানে উপ-রাষ্ট্রদূত ছিলেন, আমির খান মুত্তাকি ইরানে আফগানিস্তানের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত নিযুক্ত হয়েছেন।

ইসলামিক এমিরাতের একটি প্রতিনিধি দল বিভিন্ন বিষয়ে দেশটির কর্মকর্তাদের সাথে দেখা করতে গত শনিবার তেহরানের উদ্দেশ্যে কাবুল ত্যাগ করে।

আরও পড়ুন : আফগানিস্তানে মাইন বিস্ফোরণে ৯ শিশু নিহত

মোস্টওয়ান্টেড পাকিস্তান তালেবান নেতা খোরাশান নিহত

“এই সফরে, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, ট্রানজিট সমস্যাগুলির পাশাপাশি (আফগান) উদ্বাস্তুদের নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে আলোচনা হবে,” বলেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর উপ-মুখপাত্র হাফিজ জিয়া আহমদ।

তালেবানরা গতবছর আফগানিস্তানের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ গ্রহণকালে হেরাত প্রদেশের প্রতিরোধ ফ্রন্টের নেতা আহমদ মাসুদ বাহিনী তালেবানের সাথে পূর্ণ যুদ্ধে লিপ্ত হয়েছিল। সে সময় উভয়পক্ষে ব্যাপক হতাহতের ঘটনা ঘটে। পরে তালেবান সরকার অতিরিক্ত সৈন্য মোতায়েন ও তীব্র প্রতিরোধ যুদ্ধ চালিয়ে মাসুদ বাহিনীকে পরাজিত করে। সে সময় আহমদ মাসুদ পালিয়ে ইরানে চলে যান।

আহমদ মাসুদ এর পিতা ছিলেন আহমদ শাহ মাসউদ। ১৯৭৯ থেকে ১৯৮৯ সালের সোভিয়েত আগ্রাসনের বিরুদ্ধে এবং একই সময়ের গৃহযুদ্ধের বছরগুলোতে একজন শক্তিশালী সামরিক কমান্ডার দায়িত্বপালন করেন।

২০০১ সালের ৯ই সেপ্টেম্বর (টুইন টাওয়ারে হামলার মাত্র দুই দিন আগে) উত্তর আফগানিস্তানর তাখার প্রদেশে খাজা বাহাউদ্দিন এলাকায় আত্মঘাতি হামলায় আহমদ শাহ মাসউদ নিহত হন। এ হামলার জন্যে আল-কায়েদাকে অভিযুক্ত করা হয়। কারণ ওসামা বিন লাদেনের সঙ্গে তার বিরোধ ছিলো। এর আগে বহুবার কেজিবি, আইএসআই আফগান কমিউনিস্ট কেএইচএডি, তালেবান ও আল-কায়েদা তাকে হত্যা করার চেষ্টা করে । কিন্তু তাদের সেসব প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়। তার জন্মস্থান বাজারাকেই তাকে দাফন করা হয়। তিনিই একমাত্র আফগান নেতা যিনি কখনো আফগানিস্তানের বাইরে থাকেন নি।

Bnanews24 অনলাইনের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন

বিএনএ নিউজ ২৪,জিএন