ঢাকার সড়ক ফাঁকা, দুর্ভোগে যাত্রীরা

বিএনএ ডেস্ক: রাজধানীতে বিএনপির গণসমাবেশকে কেন্দ্র করে বেশিরভাগ রুটের বাস বন্ধ রয়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছে যাত্রীরা। গণপরিবহন না পেয়ে পায়ে হেঁটে ও রিকশায় গন্তব্যে যাচ্ছেন অনেকে। পথচারীরা বলছেন, ঢাকায় অঘোষিত বাস ধর্মঘট চলছে। শনিবার সকালে ঢাকার গুলিস্তান, শাহবাগ, কারওয়ানবাজার, ফার্মগেট, মহাখালী, নিকুঞ্জ, শ্যামলী ও মোহাম্মদপুর ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

আরো পড়ুন

ঢাকায় আসলেন বেলজিয়ামের রানি

আজও দূষিত শহরের তালিকায় শীর্ষে ঢাকা

তুরস্কে ভূমিকম্পে নিহত ১০,বাড়ছে মৃতের সংখ্যা

গণপরিবহন বন্ধ থাকায় রাজধানীর প্রতিটি সড়কে রিকশা, সিএনজি অটো রিকশার দাপট রয়েছে। বেশি ভাড়ায় তারা যাত্রী পরিবহন করতে দেখা গেছে।

বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা থেকে পল্টনে অফিসগামী পিন্টু সরকার বলেন, ‘বাসের জন্য প্রায় আধা ঘণ্টা দাঁড়িয়ে আছি। রাস্তায় কোনো বাস চলছে না। বাধ্য হয়ে মোটরসাইকেলেই ভরসা রাখতে হবে।’

বারিধারা এলাকায় রাস্তার মোড়ে মোড়ে পুলিশের উপস্থিতি দেখা গেছে। ছবি: বিএনএনিউজ।বাস না থাকায় অনেকে বাধ্য হয়ে মোটরসাইকেল বা সিএনজিচালিত অটোরিকশায় গন্তব্যে যাচ্ছেন যাত্রীরা। নিকুঞ্জের বাসা থেকে অফিসের উদ্দেশ্যে বের হয়ে অনেকক্ষণ অপেক্ষা করেও বাস পাননি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মী মাহমুদুল হাসান। তিনি বলেন, ‘তুলনামূলক বেশি ভাড়ায় সিএনজি নিতে হচ্ছে। অফিসে তো যেতেই হবে।’

রাজধানীর বেশিরভাগ দোকানপাট বন্ধ রেখেছেন ব্যবসায়ীরা। ছবি: বিএনএ নিউজ

মোহাম্মদ রফিক নামের এক রিকশা চালক বলেন, ভোরে রিকশা নিয়ে বের হয়েছি। সকাল ৮টার মধ্যেই তিনশত টাকা ইনকাম করেছি। গণপরিবহন বন্ধ থাকায় অতিরিক্ত ভাড়া নিচ্ছেন বলেও জানান তিনি।

অছিম পরিবহনের চালক মো. রাসেল বলেন, ‘আমাদের কোম্পানির মালিকেরা বাস চালাতে না দিলে, আমরা তো চালাতে পারি না। অনেকে ভয় পাচ্ছে ফলে গাড়ি চালাচ্ছেন না। আমার বাসের মালিক বাস চালাতে দিয়েছেন তাই বাস নিয়ে বের হয়েছি সকালে। তবে আমাদের কোম্পানির বেশিরভাগ বাস আজ চলছে না।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, ১০ ডিসেম্বর গাড়ি ঢাকা শহর, শহরতলী এবং আন্তজেলা রুটে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক থাকবে। তবে ১০ ডিসেম্বর গাড়ি চলাচল যাতে বাধাগ্রস্ত না হয় সে জন্য শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানান।

বিএনএনিউজ২৪/ এমএইচ