Bnanews24.com
Home » প্রতিকূলতার মধ্যেও চলচ্চিত্র এগিয়ে যাচ্ছে: তথ্যমন্ত্রী
টপ নিউজ বাংলাদেশ বিনোদন ব্যবসা মিডিয়া সব খবর

প্রতিকূলতার মধ্যেও চলচ্চিত্র এগিয়ে যাচ্ছে: তথ্যমন্ত্রী

চলচ্চিত্র এগিয়ে যাচ্ছে

বিএনএ ডেস্ক: দেশের চলচ্চিত্র প্রতিকূলতার মধ্যেও ভালোর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। এমন মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি, চলচ্চিত্র প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতি, চিত্রগ্রাহক সংস্থা এবং চলচ্চিত্র সম্পাদকদের সংগঠন এডিটরস গিল্ডের নেতৃবৃন্দ মন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ শেষে এ কথা বলেন তিনি।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে ১৯৫৭ সালে আমাদের চলচ্চিত্র শিল্প যাত্রা শুরু হয়। এরপর বহু কালজয়ী ছবির যেমন জন্ম দিয়েছে, বহু কালজয়ী নায়ক-নায়িকারও জন্ম দিয়েছে। পাশাপাশি আমাদের অনেক ছবি স্বাধিকার আদায়ের আন্দোলন, স্বাধীনতা সংগ্রাম, স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে দেশ গঠনে অবদান রেখেছে। বহু ছবি আন্তর্জাতিক অঙ্গণে পুরস্কৃত হয়েছে, প্রশংসিত হয়েছে। আমাদের ছবি এখন শুধু আমাদের সীমানায় সীমাবদ্ধ নয়, ইউরোপ-আমেরিকাসহ অনেক দেশে প্রদর্শিত হয়।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, এক সময় অনুদানের অনেক সিনেমা হলে মুক্তি পেতো না, অনেকগুলো আর্ট ফিল্মের জন্য অনুদান দেয়া হলেও ছবি বানানো হয়নি। যেসব ছবি বানানো হয়নি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া শুরু করেছি উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, তিনবার নোটিশের মধ্যে সাড়া না দিলে, তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।

হাছান মাহমুদ বলেন, ২০২০ সাল থেকে অনুদানের সিনেমা প্রথমে কমপক্ষে ১০টি ও পরবর্তীতে কমপক্ষে ২০টি হলে মুক্তি দেয়া-নীতিমালায় যুক্ত করেছি। সিনেমা শিল্প বাঁচাতে বাণিজ্যিক ছবির প্রতি আমরা জোর দেই। আর্ট ফিল্মেও প্রতিবার আমরা অনুদান দিয়েছি, ডকুমেন্টরিতেও দেয়া হচ্ছে যা নীতিমালাতেও আছে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, অনুদানের পরিমাণ দ্বিগুণ করে আগের ১০ কোটিকে এখন ২০ কোটি টাকায় উন্নীত করেছি। একটি ছবির জন্য ৩০ লাখ, ৪০ লাখ টাকা দেয়া হতো, এখন আমরা ৭৫ লাখে উন্নীত করেছি। এর ফলে সিনেমা হল ৬৫টি থেকে এখন ২১০টি হয়েছে, এক বছরের মধ্যে আরো একশটা বাড়বে।

মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সিনেপ্লেক্স, সিনেমা হল নির্মাণ, পুণ:নির্মাণ ও সংস্কারে ১ হাজার কোটি টাকার বিশেষ ঋণ তহবিল গঠন করা হয়েছে, যেখান থেকে ঋণ নেয়ার জন্য ইতিমধ্যেই বিভিন্ন ব্যাংকে দরখাস্ত পড়েছে। চলচ্চিত্রের শিল্পের সুদিন ফিরে এসছে। এজন্য চলচ্চিত্রের সাথে যারা যুক্ত তারা সবাই ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানান তিনি ।

ড. হাছান বলেন, ‘বাণিজ্যিক ছবিতে অনুদান দেয়া বিশ্ব পরিস্থিতি ও করোনা প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ছিল এবং গুরুত্বপূর্ণ আছে। সব ধরনের সিনেমার মধ্যে মূলধারার হচ্ছে বাণিজ্যিক ছবি। সেটা সবাইকে স্বীকার করতে হবে।

এসময় বাণিজ্যিক সিনেমায় অনুদানের ব্যবস্থাসহ সিনেমাশিল্পে নানামুখী উন্নয়ন পদক্ষেপ নেয়ার জন্য তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদকে ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানিয়েছেন দেশের চলচ্চিত্র সমিতিগুলোর নেতৃবৃন্দ।

চলচ্চিত্র শিল্পকে ভগ্নদশা থেকে উত্তরণের পথে নেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী ও তথ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান শিল্পী সমিতির সভাপতি ইলিয়াস কাঞ্চন। তিনি বলেন, দেশে সিনেমা হলের সংখ্যা এতো কমে গিয়েছিলো যে,  সার্বিকভাবে শিল্পীরা শংকিত হয়ে পড়েছিলাম।

বিএনএ/এ আর