যে অভিযোগে আটক হলো ৩ জাহাজ

বিএনএ,চট্টগ্রাম: অবৈধভাবে বৈদ্যুতিক সংযোগ ব্যবহার করে বাল্কহেড জাহাজ কাটা ও মেরামতের কাজ করার দায়ে তিনটি লাইটার জাহাজ এবং একটি ফিশিং ট্রলারকে আটক করেছে প্রশাসন।

আরো পড়ুন

দুর্গম সীমান্ত সড়ক পরিদর্শনে সেনাপ্রধান

‘চট্টগ্রাম শাহী জামে মসজিদ বিল’ পাস

সোমবার (১১ জানুয়ারি) নগরীর পতেঙ্গার ১৫ নং ঘাটে এনএসআই চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর শাখা ও পরিবেশ অধিদপ্তরের সদস্যরা অভিযান পরিচালনা করে।

অভিযানে যে আটক হওয়া লাইটার জাহাজসমূহ হলো- এম.ভি. দিদার পরিবহন, এম.ভি. আল সুমনা ৬, এম.ভি. মাছরাঙা এবং একটি কাঠের মাছ ধরার ট্রলার।

চট্টগ্রাম মহানগর পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মুনসুর আলম বলেন, গত ৬ জানুয়ারি থেকে ১৫ নং ঘাটে অবৈধভাবে বৈদ্যুতিক সংযোগ ব্যবহার করে বাল্কহেড জাহাজ কাটা ও মেরামতের কাজ করা হচ্ছে। সোমবার অভিযান পরিচালনার করে জাহাজগুলি আটক করা হয়। জাহাজগুলির মালিক উপস্থিত না থাকায় পরিবেশ অধিদপ্তরের থেকে জাহাজ মালিককে নোটিশ প্রদান করে।

তিনি বলেন, নোটিশে আগামী ১৪ জানুয়ারি চট্টগ্রাম মহানগর পরিবেশ অধিদপ্তর অফিসে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে এবং জাহাজ মালিককে শুনানিতে উপস্থিত হওয়ার জন্য বলা হয়েছে। শুনানি শেষে জাহাজ মালিকদের পরিবেশ অধিদপ্তরের আইন অনুযায়ী জরিমানা করা হবে।

বিএনএনিউজ/মনির