মগবাজারে পরিত্যক্ত প্লাস্টিক ড্রাম বিস্ফোরণ, আহত ৪

বিএনএ, ঢাকাঃ রাজধানীর মগবাজারে একটি পরিত্যক্ত প্লাস্টিক ড্রাম বিস্ফোরণের ঘটনায় চার পথচারি আহত হন। বিস্ফোরণস্থল থেকে অসংখ্য স্প্লিন্টার উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ। এইটা কোন ধরনের নাসকতা কি না তা তদন্ত করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে ঘটনাস্থলে এসে তিনি এসব কথা বলেন। হারুন অর রশীদ বলেন, বিস্ফোরক দ্রব্যটি ময়লা ভর্তি একটি প্লাস্টিকের ড্রামের মধ্যে ছিল। ভেতর থেকে ময়লা বের করার সময় সেটি বিস্ফোরিত হয়। ঘটনাস্থল থেকে স্প্লিন্টার পাওয়া গেছে। কী উদ্দেশ্যে বোমাটি এখানে রাখা হয়েছিল সেটা বের করতে কাজ করছি। বোম ডিসপোজাল ইউনিট ঘটনাস্থলে এসেছিল, তারা স্প্লিন্টারগুলো আলামত হিসেবে নিয়ে গেছে।প্লাস্টিকের ড্রামটিতে বোমা ছিল কি না?

এক প্রশ্নের জবাবে ডিবি প্রধান বলেন, ময়লার ড্রামটিতে শক্তিশালী বিস্ফোরণ হয়েছিল। ঘটনাস্থলে অসংখ্য স্প্লিন্টার পাওয়া গেছে। এই বিস্ফোরণে চারজন আহত হয়েছেন। একটা স্কুলের সামনে এটা কেন রাখা হয়েছিল সেটা আমরা বের করার চেষ্টা করছি। এর আগে, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মগবাজার ওয়ারলেস গেটের সামনে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

এতে আহত চার পথচারি হলেন- সাইফুল ইসলাম (৩৫), তারেফ (২০), শাহিন (৩০) ও আবুল কালাম (২৫)।

সাইফুল ইসলামের সহকর্মী সালাউদ্দিন জানান, সকালের দিকে রিকশায় কর্মস্থলে যাওয়ার পথে মগবাজার ওয়্যারলেস গেট এলাকায় যাওয়া মাত্র হঠাৎ পরিত্যক্ত ড্রাম বিস্ফোরণে সাইফুল আহত হন। পরে আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সাইফুল একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে প্রকৌশলী হিসেবে কর্মরত। তার গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায়। বর্তমানে সবুজবাগ বাসাবোয় থাকতেন। বাকিরা ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ডিপিডিসি)-এর কর্মী।

রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার কমিশনার (ডিসি) মো. শহীদুল্লাহ বলেন, সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মগবাজার ওয়ারলেস গেট এলাকায় একটি পরিত্যক্ত প্লাস্টিক ড্রাম বিস্ফোরণ হয়। এ ঘটনায় চার পথচারী আহত হয়েছেন। তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিএনএ/আজিজুল, এমএফ