28 C
আবহাওয়া
১০:৫০ অপরাহ্ণ - জুলাই ২২, ২০২৪
Bnanews24.com
Home » রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কি রাসেলস ভাইপারের অস্তিত্ব আছে?

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কি রাসেলস ভাইপারের অস্তিত্ব আছে?


বিএনএ, রাবি: রাজশাহীসহ দেশের অন্তত ২৭টি জেলায় বিষধর সাপ রাসেলস ভাইপারের অস্তিত্ব ধরা পড়েছে। দেশের অন্যতম বৃহৎ ক্যাম্পাস—রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ক্যাম্পাসে আছে নানা প্রজাতির বিষধর সাপ। প্রশ্ন উঠেছে, রাবি ক্যাম্পাসে রাসেলস ভাইপারের অস্তিত্ব রয়েছে কি না।

২০১৯ সালে দেশের প্রথম সাপের বিষের ডাটাবেজ তৈরি করেছিলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আবু রেজা। দেশের অভ্যন্তরে পাওয়া সাপগুলোর দেশীয় ও আন্তর্জাতিক নাম, খাদ্যাভ্যাস, প্রকার, প্রকৃতিসহ জীবনবৃত্তান্ত বিস্তারিত স্থান পায় সেখানে।

রাবি ক্যাম্পাসে রাসেলস ভাইপার থাকার সম্ভাবনা রয়েছে কি না—এমন প্রশ্নের জবাবে অধ্যাপক রেজা বলেন, “রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এখনও পর্যন্ত আমরা বিষধর সাপ রাসেলস ভাইপারের কোনো অস্তিত্ব পাইনি। তবে ক্যাম্পাসে সাপটি একেবারেই নেই এটি বলা যাবে না—যেহেতু এ বিষয়ে কোনো পরীক্ষা বা সার্ভে সম্পন্ন করা হয়নি।”

অধ্যাপক ড. আবু রেজা আরো জানান, “বেশ কিছু বছর আগে বিদেশ থেকে একদল গবেষক ক্যাম্পাসে আসেন; আমিও তাদের সাথে ছিলাম। তারা ক্যাম্পাসে গোখরা যে সাপটা আছে সেটার অস্তিত্ব খুঁজে পায়। তখন তারা রাসেলস ভাইপার সাপ কিংবা এর কোনো স্যাম্পল উদ্ধার করতে পারেনি। তবে আমার মনে হয় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উচিত নতুন করে একটি অভিযান পরিচালনা করা। ক্যাম্পাসে বিষধর সাপ রাসেলস ভাইপারের অস্তিত্ব আছে কি না—এটা জানা না থাকলে অন্য অনেক সাপকে রাসেলস ভাইপার মনে করে বিভ্রান্তি ছড়াতে পারে।”

এদিকে, রাবি ক্যাম্পাসে সাপ পাওয়া গেলে সেগুলো রেস্কিউ করে থাকে ডিপ ইকোলোজি এন্ড স্নেইক কনসার্ভেশন ফাউন্ডেশন নামের একটি সংগঠন। ফাউন্ডেশনের রাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. নাজমুল হাসানকে ক্যাম্পাসে রাসেলস ভাইপারের অস্তিত্ব তারা খুঁজে পেয়েছেন কি না—এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, “আমরা বেশ কিছুদিন যাবত কাজ করছি। ক্যাম্পাসে কিছু বিষধর সাপকে রেস্কিউ করেছি; সেখানে রাসেলস ভাইপার ছিল না। তাছাড়া আমাদের ক্যাম্পাস পদ্মা নদী থেকেও বেশ খানিকটা দূরে অবস্থান করায়, এখানে এই সাপের বিস্তার লাভের সুযোগ খুব একটা নেই। তবে আমাদের পরামর্শ থাকবে, যখন পদ্মার চরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ঘুরতে যাবেন তখন যেন তারা সতর্কতা অবলম্বন করে।”

উল্লেখ্য, রাজশাহী অঞ্চলে রাসেলস ভাইপারের অস্তিত্ব থাকলেও এবার আশেপাশের জেলাগুলোতেও এর প্রভাব ছড়িয়ে পড়েছে। জানা গেছে, বিষধর রাসেলস ভাইপারের কামড়ে শুধু গত দেড় বছরে রাজশাহী মেডিকেলেই মারা গেছে ১৮ জন।

বিএনএ/সাকিব, এমএফ/হাসনা

Loading


শিরোনাম বিএনএ