31 C
আবহাওয়া
২:১৫ পূর্বাহ্ণ - এপ্রিল ২৫, ২০২৪
Bnanews24.com
Home » বাংলাদেশে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ কমেছে : মার্কিন রিপোর্ট

বাংলাদেশে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ কমেছে : মার্কিন রিপোর্ট


বিএনএ, বিশ্বডেস্ক : ২০২০ সালে বাংলাদেশে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ কমেছে। পাশাপাশি বেড়েছে সন্ত্রাস-সম্পর্কিত তদন্ত এবং গ্রেপ্তার। ২০২০ সালে তিনটি সুনির্দিষ্ট সন্ত্রাসী ঘটনা ঘটেছে। এতে কোনো প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি। এ ছাড়া বাংলাদেশের আইন শৃঙ্খলাবাহিনী, ধর্ম মন্ত্রণালয় এবং জঙ্গিবাদ, প্রতিরোধ ও প্রতিরোধ সংক্রান্ত জাতীয় কমিটি জনসম্পৃক্ততার জঙ্গিবাদের প্রসার ঠেকাতে ভূমিকা রেখেছে।

এসব কথা বলা হয়েছে ২০২০ সালের জঙ্গিবাদ নিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রতিবেদনে বাংলাদেশ অংশে। বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার (১৬ ডিসেম্বর) রাতে পররাষ্ট্র দপ্তরে এই প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।

গত ১১ ডিসেম্বর র‌্যাবের ‘গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনের’ অভিযোগে এ বাহিনী, এর সাবেক প্রধান, বর্তমান পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদসহ সাত কর্মকর্তার ওপর যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ ও পররাষ্ট্র দপ্তরের নিষেধাজ্ঞা নিয়ে আলোচনার মধ্যে এ প্রতিবদেন প্রকাশ পেল; যাতে বাংলাদেশে জঙ্গিবাদী সন্ত্রাসী কার্যক্রম কমার ভালো খবর দেওয়া হয়েছে।

মার্কিন প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, কাউন্টার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট এবং র‍্যাপিড একশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) গোটা বছর জুড়ে উগ্রবাদ দমন ও পুনর্বাসন কার্যক্রম পরিচালনা করেছে। এছাড়া বিদেশি সন্ত্রাসী গ্রেফতার, তদন্ত ও সমাজে পুলিশি তৎপরতা বৃদ্ধির জন্য কাজ করেছে।

গত বছর দুইজন বাংলাদেশি সন্ত্রাসবাদী কার্যক্রমের জন্য বিদেশে গ্রেফতার হয়। এরমধ্যে একজন গত বছরের নভেম্বরে সিঙ্গাপুরে আইসিস এর হয়ে প্রচারণা চালানো, সশস্ত্র সহিংসতায় উৎসাহ দেওয়া এবং সিরিয়াভিত্তিক হায়াত তাহরির আল-সামকে অর্থ প্রদানের অভিযোগে গ্রেফতার হয়।

এছাড়া গত বছরের ২৭ এপ্রিল স্পেনে বসবাসরত একজন বাংলাদেশিকে আইসিসের হয়ে তহবিল সংগ্রহের জন্য সাত বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

মার্কিন রিপোর্টে উল্লেখ করা হয় হোলি আর্টিজান সন্ত্রাসী ঘটনার জন্য সাতজনকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে কিন্তু সুপ্রিম কোর্টে আপিল এখনও নিষ্পত্তি হয়নি।

ওই সন্ত্রাসী ঘটনায় একজন মার্কিন নাগরিকসহ ২০ জন নিহত হয় এবং হামলাকারীরা আইসিসের অনুসারী বলে নিজেদের দাবি করে।

যুক্তরাষ্ট্রের কান্ট্রি রিপোর্ট অন টেরোরিজম এ বলা হয়েছে, সীমান্ত ও প্রবেশ বন্দরগুলোর সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কাজ করছে বাংলাদেশ। এতে আরও বলা হয়েছে, ঢাকা বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে উদ্বেগের মধ্যে আছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়। যুক্তরাষ্ট্রে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কে৯ টিম বিমানবন্দরে টহল দিয়ে থাকে কিন্তু সবসময় নয়। ইন্টারপোলকে সবসময় তথ্য দিয়ে থাকে বাংলাদেশ কিন্তু দেশটিতে সার্বক্ষণিক টেরোরিস্ট এলার্ট লিস্ট নেই। চিহ্নিত ও সন্দেহভাজন সন্ত্রাসীদের জাতীয়ভাবে তালিকা তৈরির জন্য সক্ষমতা বৃদ্ধিতে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্র কাজ করে যাবে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে সন্ত্রাসবাদ কমলেও ২০২০ সালে সারা বিশ্বে সন্ত্রাসবাদ ১৫ শতাংশ বেড়েছে।
বিএনএনিউজ/এইচ.এম।

Loading


শিরোনাম বিএনএ