23 C
আবহাওয়া
২:০৯ পূর্বাহ্ণ - ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২৪
Bnanews24.com
Home » নওয়াজ- বিলাওয়াল দুইজনই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী!

নওয়াজ- বিলাওয়াল দুইজনই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী!


বিএনএ, ঢাকা: আশির দশকের হিন্দি সিনেমার গানের মতোই এখন পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) ও পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) ক্ষমতা ভাগাভাগি সংক্রান্ত চুক্তি করেছে । পাঁচ বছরের মধ্যে আড়াই বছর প্রধানমন্ত্রীত্ব করবে পিপিপি এবং আড়াই বছর পিএমএল-এন। অর্থাৎ ফিফটি ফিফটি ফর্মূলাতেই হবে ক্ষমতার ভাগাভাগি। পাকিস্তানের রাজনৈতিক ইতিহাসে ফিফটি- ফিফটি ফর্মূলাটি বেশ আলোড়ন তুলেছে।

YouTube player

পাকিস্তানের ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির ২৬৪টি আসনে গণনা শেষ হয়ে গেলেও কোনও দলই এককভাবে ‘জাদুসংখ্যা’ ছুঁতে পারেনি। ত্রিশঙ্কু ফলাফল হওয়ায় জোট সরকারই ক্ষমতায় আসতে চলছে বলে মনে করা হচ্ছে।

কেন্দ্র ও প্রদেশে জোট সরকার গঠনের প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে ৮ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনের পর রোববার তাদের প্রথম বৈঠকে অর্ধেক মেয়াদের জন্য প্রধানমন্ত্রী নিয়োগের ধারণাটি আলোচনা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালে বেলুচিস্তানে পিএমএল-এন এবং ন্যাশনাল পার্টি (এনপি) একই পন্থায় ক্ষমতা ভাগাভাগি করেছিল। তখন দুটি দলের দুই মুখ্যমন্ত্রী আড়াই বছর করে পাঁচ বছরের মেয়াদ পূর্ণ করেছিলেন।

লাহোরের বিলাওয়াল হাউজে রোববারের বৈঠকে দুই পক্ষই সাধারণ নির্বাচনের পর দেশের রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্য সহযোগিতা করতে নীতিগতভাবে সম্মত হয়েছে।

বৈঠকে পিপিপি-পার্লামেন্টারিয়ান প্রেসিডেন্ট আসিফ আলি জারদারি, পিপিপি চেয়ারম্যান বিলাওয়াল-ভুট্টো জারদারি ও পিএমএল-এন থেকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ উপস্থিত ছিলেন। পিএমএল-এন প্রতিনিধি দলে ছিলেন আজম নাজির তারার, আয়াজ সাদিক, আহসান ইকবাল, রানা তানভীর, খাজা সাদ রফিক, মালিক আহমেদ খান, মরিয়ম আওরঙ্গজেব ও শেজা ফাতিমা।

উভয় দলের নেতারা বিরাজমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট এবং দেশের উন্নতির জন্য সহযোগিতামূলক প্রচেষ্টার অপরিহার্যতা নিয়ে একান্ত আলোচনা করেছেন।

পরে এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত বৈঠকে জাতির স্বার্থ ও মঙ্গলকে সবকিছুর ঊর্ধ্বে রাখার অঙ্গীকার ব্যক্ত করা হয়।

যৌথ বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, আলোচনার মূল বিষয়গুলো ছিল পাকিস্তানের সামগ্রিক পরিস্থিতির মূল্যায়ন, ভবিষ্যৎ রাজনৈতিক কৌশল নিয়ে আলোচনা এবং বোর্ড জুড়ে স্থিতিশীলতা ও অগ্রগতি প্রচারের লক্ষ্যে সুপারিশ বিনিময়।
উভয় দলই পাকিস্তানকে রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা থেকে দূরে সরিয়ে সমৃদ্ধি ও স্থিতিস্থাপকতার দিকে নিয়ে যাওয়ার জন্য তাদের নিবেদন নিশ্চিত করেছে।

নওয়াজ এবং বিলওয়াল যখন সরকার গঠনের তোড়জোড় শুরু করেছেন, সেই সময় রাস্তায় নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই)। ভোটে কারচুপির অভিযোগ তুলে নির্বাচন কমিশনের দফতরগুলির সামনে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন পিটিআই সমর্থকেরা। ইতিমধ্যেই রাওয়ালপিন্ডি এবং লাহোরের পূর্ব প্রান্তের একাধিক জায়গা থেকে পুলিশ এবং পিটিআই সমর্থকদের মধ্যে খণ্ডযুদ্ধের খবর পাওয়া গিয়েছে। সব মিলিয়ে পাকিস্তান একটি অস্থির সময় পার করছে।

বিএনএ/ শামীমা চৌধুরী শাম্মী, ওজি/ হাসনা

Loading


শিরোনাম বিএনএ
অসাধু ব্যবসায়ীদের কারসাজিরোধে ভোক্তাদেরও সতর্ক থাকার আহ্বান খাদ্যমন্ত্রীর প্রাথমিকভাবে বন্ধ করা হবে ৫০০ ইটভাটা পাকিস্তানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ৯ মার্চ ইউক্রেনের চেয়ে ৬ গুণ বেশি নারী-শিশু নিহত গাজায় ব্যবসায়ী সমিতিগুলো সহযোগিতা করলে  দ্রব্যমূল্য ক্রয়সীমার মধ্যে রাখা সম্ভব--সমাজকল্যাণ মন্ত্রী পবিত্র শবে বরাতের নামাজের নিয়ত, নিয়ম ও দোয়া শার্শার কৃতি সন্তান রাসেলের 'কার্ডিওলজি' ডিগ্রী অর্জন ভাসানচরে সিলিন্ডার বিস্ফোরণ, দগ্ধ রোহিঙ্গা শিশুর মৃত্যু মিয়ানমার উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে মাদক পাঠাচ্ছে: র‌্যাব মহাপরিচালক রাউজান স্কুল প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী পরিষদের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত