বিআইডব্লিউটিএ’র অনুমোদন ছাড়া কোনো সেতু নয়: প্রতিমন্ত্রী

বিএনএ: বিআইডব্লিউটিএর অনুমোদন ছাড়া কোনো সেতু নির্মাণ করা যাবে না বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহণ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

আরো পড়ুন

আজ রাজধানীতে যেসব এলাকায় গ্যাস থাকবে না

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর চীন সফর স্থগিত

বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারি) দুপুরে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ডিসি সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন তিনি। 

খালিদ মাহমুদ বলেন, আমাদের নদীগুলোতে বিভিন্ন ধরনের জাহাজ চলাচল করে। এ ক্ষেত্রে কোন নদীতে কোন জাহাজ চলাচল করবে, সেটি মাথায় রেখেই সেতুগুলো নির্মাণ করতে হবে। সেটির ক্লিয়ারেন্স দেয় বিআইডব্লিউটিএ। এ ক্ষেত্রে তাদের অনুমোদন ছাড়া রোডস, এলজিইডি, সেতু বিভাগ কেউ-ই যেন কোনো ব্রিজ নির্মাণ করতে না পারে, সে বিষয়ে জেলা প্রশাসকদের তদারকি করতে বলেছি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা চাই আমাদের নৌপ্রবাহ যেন ঠিক থাকে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, শিরার মধ্যে যদি রক্ত প্রবাহিত না হয় তা হলে মানুষ থেমে যাবে। তেমনি নদীমাতৃক বাংলাদেশেও পানি প্রবাহিত না হলে থেমে যাবে, দুর্বল হয়ে যাবে।

খালিদ মাহমুদ বলেন, প্রমোদতরী গঙ্গা বিলাস ভারত থেকে ১৩ জানুয়ারি যাত্রা করেছে। ভারত থেকে বাংলাদেশ হয়ে আবার ভারতে যাবে। ফেব্রুয়ারির ৪ তারিখে মোংলায় আমরা স্বাগত জানাব। জেলা প্রশাসকদের স্বাগত জানাতে বলা হয়েছে।

প্রমোদতরী বাংলাদেশের নদীতে এলে পরিবেশের কোনো ক্ষতি হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, পরিবেশবাদীরা সবসময়ই ভালো কাজগুলোতে বিরোধিতা করেন। রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণেও তারা বিরোধিতা করেছেন। আমরা মোংলায় যে গভীরতা তৈরি করছি, এতে করে সাড়ে ৯ মিটার ড্রাফটের জাহাজ আমাদের বন্দরে ভিড়বে, এই চক্রটিই বিরোধিতা করেছে। তাদের বিষয়গুলো হলো-আমাদের আদিম যুগে ফিরে যেতে হবে। এই চক্রটি কখনই দেশের উন্নয়নের কথা বলে না।

রূপপুর পাওয়ার প্লান্টের মালামাল আমদানিতে রাশিয়ার একটি জাহাজ আসার কথা রয়েছে, যা আবার আমেরিকার নিষেধাজ্ঞায় আটকে আছে-জানতে চাইলে খালেদ মাহমুদ বলেন, জাহাজটি সর্বশেষ কোথায় আছে, এ বিষয়ে আমাদের কাছে কোনো তথ্য নেই। যেহেতু তাদের ওপর একটা নিষেধাজ্ঞা আছে, আমাদের পক্ষ থেকে যা করার করেছি। এখন রাশিয়া কীভাবে জাহাজটি পাঠাবে, মালামালগুলো তাদের এজেন্টরা কীভাবে নিয়ে আসবে, এটি তাদের বিষয়।

বিএনএনিউজ/এ আর